সব খবর সবার আগে।

জেএনইউ-তে হাজিরার জন্য পাকিস্তানের থেকে ৫ কোটি পেয়েছিলো দীপিকা, কঙ্গনার নিশানায় দীপিকা

২০১৯ সালের শেষের দিকে সিএএ, এন আর সি বিতর্কে উত্তাল হয়েছিল গোটা দেশ। কেন্দ্রীয় সরকারের আরোপিত এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছিল দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হন বেশ কয়েকজন। যা নিয়ে প্রবল সমালোচনা ও বিতর্ক শুরু হয় দেশ জুড়ে। গুরুতর আহত ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী দাশগুপ্তের সঙ্গে তড়িঘড়ি দেখা করতে ছুটে গিয়েছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন। যদিও অনেকেই বলেছিন তখন আসন্ন মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘ছপক’ এর জন্য প্রোমোশনাল স্টান্ট ছিল এটা। যদিও দীপিকার ঐশীর পাশে জোড়হাতে দাঁড়ানোর ছবি মুহূর্তেই ভাইরাল হয়েছিল।

যদিও সেই ঘটনা মানুষ ভুলে গিয়েছে, করোনা আবহে এন আর সি বিতর্ক এখন অতীত। তবে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত যথারীতি সেই পুরনো খবরকে তাজা করে তুলেছেন। তাঁর দাবি, পাকিস্তানের থেকে ৫ কোটি টাকা নিয়েছিলেন দীপিকা! সেই অর্থের বিনিময়েই উপস্থিত হয়েছিলেন জেএনইউতে! কঙ্গনার এরকম মন্তব্যের জেরে পুরনো সেই খবর আবার ভাইরাল হয়ে উঠল।

প্রাক্তন র অফিসার এনকে সুড সম্প্রতি দাবি করেছিলেন যে দীপিকা পাড়ুকোন পাকিস্তানি এজেন্ট অনিল মুসারতের থেকে ৫ কোটি টাকা পেয়েছিলেন জেএনইউ যাওয়ার জন্য! এই খবর সামনে উঠে আসা মাত্রই সেদিনে নজর যায় বলিউড কুইনের।  কঙ্গনা এই বিষয় নিয়ে চুপ করে থাকবেন এটা আশা করাটাই অন্যায়। তাই তিনি বলেন যে বলিউডের এই ধরনের সেলিব্রিটির কাছ থেকে এরকম আশা করা উচিত নয়।

এছাড়াও টুইটারে তিনি দীপিকা পাড়ুকোনের মানসিক অবসাদ নিয়ে সাম্প্রতিক যে পোস্ট গুলি রয়েছে সেগুলোকে কটাক্ষ করে লেখেন যে মুম্বাই পুলিশের উচিত যারা “রিপিট আফটার মি” ট্রেন্ড শুরু করেছে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদেরকে নিজেদের হেফাজতে নেওয়া। এই পোস্টে দীপিকার নাম উল্লেখ না করা হলো দীপিকার টুইটার হ্যান্ডেল কে ট্যাগ করা হয়েছে। দীপিকা পাড়ুকোন সম্প্রতি মানসিক অবসাদ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় “রিপিট আফটার মি” ট্রেন্ড শুরু করেছেন।

যদিও এখনো এই ব্যাপারে দীপিকা পাড়ুকোনের তরফ থেকে কোনো রকম প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি বলিউডের প্রথম সারির দুই অভিনেত্রীর মনোমালিন্য ফের একবার প্রকাশ্যে চলে এল।

You might also like
Leave a Comment