বিনোদন

অ’না’বৃ’ত ঊ’র্ধ্বা’ঙ্গ, কাঁধের উপর খোলা চুল, চোখে চওড়া কাজল, কোন ‘সর্বনাশের আশায়’ বসে জুন আন্টি?

অ’না’বৃ’ত ঊ’র্ধ্বা’ঙ্গ, কাঁধে এলানো খোলা চুল, মায়াবী দৃষ্টিতে তাকিয়ে তিনি, তাঁর পরনে সাদা জামদানী। চোখে চওড়া কাজল মেখে কোন সর্বনাশের খেলায় মাতলেন জুন আন্টি ওরফে ঊষসী চক্রবর্তী? এখন সেই প্রশ্নই ঘোরাফেরা করছে নেট মহলে। তাঁর সেই কোনও অলঙ্কার, নেই কোনও সাজ। ‘বিনোদিনী’ বলে আখ্যা দিলেন তাঁকে নেটিজেনরা। এমন নজরকাড়া ছবি পোস্ট করে অভিনেত্রী ক্যাপশনে লিখলেন, “তার লাগি পথ চেয়ে আছি, পথে যে জন ভাসায়”।

এই বিষয়ে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে ঊষসী বলেন, “রবি ঠাকুরের ‘চোখের বালি’র বিনোদিনীর ভঙ্গিতেই আসলে বলতে চেয়েছি, আমি সকল নিয়ে বসে আছি সর্বনাশের আশায়”।

কিছুদিন আগেই ‘জুন আন্টি’র সর্বনাশের নমুনা ফেসবুকে দেখেছেন অনুরাগীরা। তাঁর পর্দার স্বামী ‘অনিন্দ্য’ ওরফে সুদীপ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে চূড়ান্ত ঘনিষ্ঠ তিনি। রোম্যান্টিক হিন্দি গানের তালে নাচে মাতোয়ারা। এ বার কি তবে নিজের আরও সর্বনাশ চান তিনি? এর উত্তরে অভিনেত্রীর পাল্টা জবাব, “ওটা পুরোটাই পর্দাসুলভ। পর্দায় যা সর্বনাশ হওয়ার, জুন আন্টির হয়ে গিয়েছে। বাস্তবের ঊষসী চাইছে, এ রকমই সর্বনাশ হোক তার! তারই পথ চেয়ে বসে আছি”।

এরপরই অভিনেত্রী জানান যে ভক্তদের বিনোদন দিতেই তাঁর এই প্রচেষ্টা। যদি ‘জুন আন্টি’র ভক্তসংখ্যা কমে যায়? তাহলে তা তিনি কিছুতেই মেনে নিতে পারবেন না। এই কারণেই এমন সাহসী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন তিনি।

এদিকে আবার কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে যে জুন আন্টির নাচ দেখে নাকি রোহিত সেন বেশ মুগ্ধ হয়েছেন। আর ঊষসীও জানিয়েছেন যে টোটা রায়চৌধুরীর নতুন রূপে তিনি মুগ্ধ। কিন্তু বিগত কয়েকদিন ধরেই টোটাকে ধারাবাহিকে দেখা যাচ্ছে না। এই কারণেই কী এমন বিরহের সাজ ঊষসীর? ফের রসিকতা ক্ল্রে অভিনেত্রী বলেন, তিনি ‘চোখের বালি’র ‘বিনোদিনী’ হতে রাজি আছেন, তবে মহেন্দ্র মোটেই টোটা নন।

Related Articles

Back to top button