সব খবর সবার আগে।

রাস্তায় প্রকাশ্যে এই কাজ করতে হয়েছে আলিয়া ভাটকে, শুনলে অবাক হবেন!

আলিয়া ভাট, বর্তমানে বলিউড ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী। নিজের অভিনয়ের মাধ্যমে বরাবরই দর্শকের মন জয় করে এসেছেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়াতেও তাঁর ভক্তের সংখ্যা কম নয়।

২০১৪ সালে মুক্তি পায় আলিয়া ভাট ও রণদীপ হুডা অভিনীত ইমতিয়াজ আলি পরিচালিত ছবি ‘হাইওয়ে’। এই ছবিই আলিয়ার কেরিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট বলা যেতে পারে। এই ছবি পুরোটাই শুটিং হয়েছে রাস্তায়। এই ছবির সম্বন্ধে কথা বলতে গিয়ে আলিয়া বলেছিলেন, “আমরা যাযাবরের মতো এদিক ওদিক ঘুরে বেড়াতাম। যেখানেই ভালো লোকেশন দেখতাম, সেখানেই শুটিং করতাম। এখানে আলো ভালো আছে তো এখানে শুটিং করে নাও, এভাবেই গেরিলা-পদ্ধতিতেই শুটিং চলত”।

আরও পড়ুন- অভিনয় ছেড়ে এবার গান ধরলেন ‘কৃষ্ণকলি’র নিখিল, বরের গান শুনে কী প্রতিক্রিয়া হল তৃণার? 

এই ছবির অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে গিয়েই আলিয়া বলেন যে এই শুটিং-এ সেই অর্থে কোনও ভ্যানিটি ভ্যান থাকত না। লরির মধ্যেই এধার-ওধার যাতায়াত করতেন তারা। এই কারণে কখনও বাথরুম যাওয়ার সময় হলে মহাবিপদে পড়তেন আলিয়া। কারণ চারিদিক ফাঁকা, বনবাদাড়, মাঝে রাস্তা, এমন জায়গাতেই হত তাদের শুটিং।

এই কারণে একটি উপায় বের করে আলিয়া। বাথরুম যাওয়ার সময় হলে তিনি রাস্তার পাশের ঝোপঝাড়ের মধ্যেই প্রস্রাব করতেন। হ্যাঁ, একথা নিজের মুখেই স্বীকার করেন আলিয়া। তাঁর কথা, “অনেকেই আমাকে বলত কোনও বাথরুম ব্যবহার করার জন্য, কিন্তু আমি বলতাম, না আমি এখানেই প্রস্রাব করে নেব”।

কিন্তু এই সময় যদি কেউ তাঁকে দেখে ফেলতেন, তাহলে কী হত? এমন প্রশ্ন করায় আলিয়ার হেসে বলেছিলেন, “যদি কেউ সেই সময় ওখান দিয়ে যেত, তাহলে তারা পিছন দিক দেখত, সামনের দিকে তো দেখতে পেত না। তাই কোনও সমস্যা হয়নি”।

আরও পড়ুন- এতদিন ধরে সকলের থেকে কোন কথা লুকিয়ে রেখেছিলেন মিমি? গোপন তথ্য ফাঁস করলেন অভিনেত্রী 

প্রকৃতির এই ডাক কখন কার জীবনে আসে বলা মুশকিল। আর তারা যতই সেলিব্রিটি হন না কেন, তারাও তো মানুষ। তাই অন্য কোনও অপশন সবসময় খুঁজে নিতেই হয়। আলিয়াও ঠিক তাই-ই করেছেন।

You might also like
Comments
Loading...