সব খবর সবার আগে।

‘আমি কী দান করার জিনিস?’, আলিয়া ভাটের নতুন বিজ্ঞাপনে হিন্দু ধর্মকে অসম্মানের অভিযোগ, বিতর্ক তুঙ্গে

বিজ্ঞাপনের শুটিং করে এবার বিতর্কে জড়ালেন বলি অভিনেত্রী আলিয়া ভাট। এক পোশাক প্রস্তুতকারী সংস্থার হয়ে বিজ্ঞাপন করেন অভিনেত্রী। তবে নেটিজেনদের মত, এই বিজ্ঞাপনে হিন্দু ধর্মকে অসম্মান করা হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও এই বিজ্ঞাপন সংস্থাকে চরম রোষের মুখে পড়তে হয়।

গত সপ্তাহেই প্রকাশ্যে এসেছে এই বিজ্ঞাপনটি। এই বিজ্ঞাপনে আলিয়া দেখা গিয়েছে কনের সাজে। বিয়ের মণ্ডপে বসে এক কনের মনের কী কী অভিব্যক্তি হয়, তা ব্যক্ত করেন আলিয়া। এরই মধ্যে আসে কন্যাদানের সময়। তখনই প্রশ্ন তোলা হয় যে কোনও কন্যা দানের সামগ্রী কী করে হতে পারে? তাই, ‘কন্যাদান’ নয়, ‘কন্যামান’ হোক। এমন বার্তা দিয়েই এই বিজ্ঞাপনটি শেষ হয়।

আরও পড়ুন- মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে রাখি সাওয়ান্তের তুলনা টেনে ব্যাপক বিতর্কে জড়ালেন যোগীরাজ্যের বিধানসভার স্পিকার

কন্যাদান নিয়ে এমন মন্তব্যের জেরেই এই বিজ্ঞাপন নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক। নেটিজেনদের একাংশের মতে, আলিয়ার এই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে হিন্দু ধর্মকে অসম্মান করা হয়েছে।

কেউ কেউ দাবী করেছেন যে হিন্দু ধর্মে কন্যাদান মানে কন্যাকে দান করে দেওয়া নয়, বরং কন্যার জন্য দান করা।

আবার কারোর অভিযোগ, যে ঐতিহ্যের দোহাই দিয়ে এই সংস্থা পোশাক বিক্রি করে সেই ঐতিহ্যরই অপমান কর হয়েছে এই বিজ্ঞাপনে। হিন্দু রীতি মেনে যদি বিয়েই না হয়, তাহলে সেই সংস্থার পরবেন পোশাক কারা? এমন প্রশ্নও তোলা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

You might also like
Comments
Loading...