সব খবর সবার আগে।

“এত মোটা মেয়েকে বিয়ে করেছে অনির্বাণ?” সদ্য বিবাহিতা স্ত্রীর শারীরিক গঠন নিয়ে অশালীন মন্তব্য, প্রতিবাদে সরব হয়ে অনির্বাণের পাশে অনুরাগীরা

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর প্রেম পেয়েছে পরিণতি। দীর্ঘদিনের বান্ধবী মধুরিমা গোস্বামীকেই নিজের জীবনসাথী হিসেবে বেছে নিয়েছেন অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্য। বৃহস্পতিবারই একেবারে স্বল্প আয়োজনের মাধ্যমে আইনি মতে একে অপরের সঙ্গে থাকার অঙ্গীকার করেন অনির্বাণ ও মধুরিমা। বিয়ের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে তাদের বিয়ের ছবি ও মালাবদলের ভিডিও। এরপর থেকেই শুরু হয় নতুন বউয়ের চেহারা ও শারীরিক গঠন নিয়ে কাঁটাছেড়া। নানা রকম কুরুচিকর মন্তব্যে ভরে উঠে সোশ্যাল মিডিয়া। এইসব পোস্টের তীব্র প্রতিবাদ জানায় অনির্বাণের অনুরাগীরা। পাল্টা জবাব দিতে থাকেন তারাও।

মূলত, অতিমারির জেরেই তাদের বিয়ের তারিখ পিছিয়ে যায়। তবে অবশেষে প্রেমিকার সিঁথিতে সিঁদুরদান করে সারাজীবনের জন্য তাকে নিজের করে নেন অনির্বাণ। বিয়ের দিন বর-কনে দুজনেই সেজে উঠেছিলেন লাল রঙের পোশাকে। অনির্বাণের পরনে ছিল সিল্কের লাল পাঞ্জাবি ও লাল-সাদা ধুতি এবং মধুরিমা সেজেছিলেন লাল সিল্কের শাড়িতে। তাদের বিয়ের বিভিন্ন ছবি মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায় নেট দুনিয়ায়। সকলেই অনির্বাণ ও মধুরিমাকে বিয়ের শুভেচ্ছা জানাতে থাকেন। অনেক মহিলাই আবার লিখেছেন, “তুমি বিয়ে করে মনটা ভেঙ্গে দিলে”। তবে এমন সব মিষ্টি মিষ্টি কমেন্টের পাশাপাশি উঠে আসে কিছু অশালীন মন্তব্যও যা মধুরিমাকে করা হয় তাঁর শারীরিক গঠন নিয়ে।

অনির্বাণের মতো অভিনেতার কীভাবে মধুরিমাকে পছন্দ হল, সে প্রশ্ন করতেও দ্বিধা বোধ করেননি অনেকে। এমনকী তাঁদের বিয়ের ভিডিও দেখে প্রশ্ন তুলেছেন, “কনের মুখে এত বিরক্তি কেন? বিয়ে করতে কি ইচ্ছা করছিল না?” সিঁথিতে সিঁদুর পরানো নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করেন নেটিজেনদের একাংশ।

এই নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয় সোশ্যাল মিডিয়াতে। এসমস্ত কু-মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিতে ছাড়েননি অনির্বাণের অনুরাগীরাও। শুধুমাত্র নিজের প্রিয় অভিনেতার অনুরাগী হিসেবে নয়, একজন মানুষ হিসেবে অনির্বাণের পাশে দাঁড়ান তারা। এইসব কুরুচিকর মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেন তারা। একজন নেটিজেন আবার এক ফেসবুক ইউজারের এই অশালীন মন্তব্যের বেশ কিছু স্ক্রিনশট নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে ওই ইউজারকে কড়া ভাষায় দাগেন।

অনির্বাণের পাশে দাঁড়িয়ে নিন্দুকদের পাল্টা জবাব দেওয়ার মাধ্যমে তারা এটাই বোঝাতে চেয়েছেন যে নব দম্পতিকে এভাবে আক্রমণ করে নিন্দুকেরা নিজেদের নিম্নমানের পরিচয়টাই দিয়েছেন।

You might also like
Comments
Loading...