সব খবর সবার আগে।

সুশান্ত মৃত্যুরহস্যে নয়া মোড়! অভিনেতার এক দিদির বিরুদ্ধে মামলা খারিজ, অন্য দিদির বিরুদ্ধে মামলায় স্থগিতাদেশ বম্বে আদালতের

সুশান্তের দুই দিদি মিতু সিং ও প্রিয়াঙ্কা সিং-এর বিরুদ্ধে বম্বে আদালতে মামলা দায়ের করেছিলেন প্রয়াত অভিনেতার বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী। আজ মিতু সিংয়ের বিরুদ্ধে মামলা খারিজ করল বম্বে হাইকোর্ট। তবে অভিনেতার আর এক দিদি প্রিয়াঙ্কা সিংয়ের বিরুদ্ধে মামলায় স্থগিতাদেশ জারি করল আদালত।

এই বিষয়ে বিচারপতি এসএস শিন্ডে ও এমএস কার্নিকের বিচারাধীন ডিভিশন বেঞ্চ জানায় যে প্রিয়াঙ্কার বিরুদ্ধে প্রাথমিক মামলা রয়েছে। তাও তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত বন্ধ করে দেওয়া উচিত হবে না।

গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে রিয়া চক্রবর্তী মিতু ও প্রিয়াঙ্কার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করার পর তারা এই মামলা খারিজের জন্য আদালতে পিটিশন জমা করেন। এরপর আজ সেই মামলার শুনানি হয়।

গত বছরের জুন মাসে অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতকে তাঁর বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এরপরই তাঁর পরিবারের তরফে দাবী করা হয় যে সুশান্তের এই মৃত্যুর পিছনে তাঁর বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীর হাত রয়েছে। এই কারণে রিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিবিআইয়ের তরফে ডেকে পাঠানো হলে তাঁর সঙ্গে মাদক সেবনের দিকটি উঠে আসে। এর হেরে প্রায় এক মাস জেলে বন্দি থাকার পর শর্তসাপেক্ষ বন্ডে জাইন পান তিনি। এরপর সেপ্টেম্বর মাসে সুশান্তের দুই দিদি প্রিয়াঙ্কা সিং ও মিতু সিংয়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন রিয়া।

রিয়ার অভিযোগ ছিল, কিছু বেআইনি প্রেসক্রিপশনের মতে ওষুধ খাওয়ার পরই সুশান্তের মৃত্যু হয়। সুশান্তের দিদি ও ডঃ কুমারের বিরুদ্ধে এই জাল প্রেসক্রিপশনের ওষুধ দেওয়ার জন্য তদন্ত করার আর্জি জানান রিয়া। তাঁর দাবী কোনওরকম পরামর্শ ছাড়াই সুশান্তকে এই বেআইনি প্রেসক্রিপশন দিয়ে ওষুধ খেতে বলেছিলেন তাঁর দিদি।

এই সময়ই সুশান্ত ও তাঁর দিদির হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁস হয়ে যায়। এঁটে দেখা যায় যে তাঁর দিদি তাঁকে বলেছিলেন যে যখনই সুশান্ত মানসিক অবসাদে বা উদ্বেগে ভুগবে তখন যেন সে লিব্রিয়াম, নেক্সিটো ও লোনাজেপ ওষুধগুলি খায়। এই চ্যাটের ভিত্তিতেই মিতু ও প্রিয়াঙ্কার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

You might also like
Comments
Loading...