সব খবর সবার আগে।

বি জে পি তে যোগদান করে অনেক বেশি কাজ পেয়েছি, বিস্ফোরক বনি সেনগুপ্ত

শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় তনুশ্রী চক্রবর্তীর পর এবার বিজেপি ছাড়ার পরিকল্পনা নিচ্ছেন অভিনেতা বনি সেনগুপ্ত।সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই বঙ্গ বিজেপি শোরগোল সৃষ্টি হয়েছে।

এই নিয়ে খবর আসতেই সংবাদমাধ্যমে অকপট অভিনেতা বনি সেনগুপ্ত। রাজনীতিতে হঠাৎ সরে আসছে কেন বনি? সংবাদমাধ্যমের এক প্রশ্নে অভিনেতা জানান “মোহ ভঙ্গ নয় তো! একটা সময়ের পরে মনে হচ্ছিল, আমি যেন রাজনীতিতে বেশি জড়িয়ে পড়ছি। অভিনয় থেকে দূরে সরে যাচ্ছি। অথচ আমার আসল পরিচয়, আমি অভিনেতা। তার জন্যই এই সিদ্ধান্ত। সবাই খুব ভুল ভাবছেন, দল হেরেছে বলে আমরা সরে যাচ্ছি। আমার অন্তত তেমন কোনও মানসিকতা নেই। দল জিতে সরকার গড়লেও আমি অভিনয়টাই আগে করতাম। তখনও শ্যুটে ব্যস্ত থাকলে রাজনীতি থেকে এ ভাবেই দূরে থাকতাম।”

বি জে পি তে নাকি শাসক দলে? বনির উত্তর “আমায় দুই দলই ডাকছে। দুই দলকেই জানিয়েছি, অভিনয় আমার পেশা। আমার দায়িত্বে সংসার। ফলে, কাজ থেকে দূরে থাকার কোনও উপায় নেই। আমিও অভিনয় ছাড়া থাকতে পারব না। তাই এই মুহূর্তে পুরোপুরি রাজনীতিতে সময় দিতে পারব না।”

 

রাজনীতিতে যোগ দেওয়া কি সুবিধা হলো অভিনেতার? একের পর এক কাজের অফার! এই প্রসঙ্গে অভিনেতা হাসতে হাসতে জানান আমি তো তা হলে ইন্ডাস্ট্রিতে ‘উদাহরণ’ তৈরি করলাম! যাঁরা বিভ্রান্তি ছড়িয়েছিলেন তাঁরা এ বার কী বলবেন? শাসকদল কাজ করতে দিচ্ছে না, ডাহা মিথ্যে কথা। দলে যোগ দেওয়ার পরে কিছু সমস্যা তৈরি হয়েছিল। আলোচনায় সব মিটে গিয়েছে। আর এখন তো ইন্ডাস্ট্রিতে নিরবচ্ছিন্ন শান্তি। যাঁদের হাতে কাজ নেই তাঁরা রটাচ্ছেন এ সব। একা আমি নই, যশ দাশগুপ্ত, শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় সহ সবাই কাজ পাচ্ছেন।”

আম্রপালি পরের কাজ সম্পর্কে অভিনেতা সংবাদমাধ্যমে জানান “বাংলাদেশের ছবির কাজ শেষ করব। কৌশানির মা আচমকা চলে যাওয়ায়, চার দিনের কাজ বাকি রয়ে গিয়েছে। সঙ্গে আরও পাঁচ দিন যুক্ত হবে। মোট নয় দিনের কাজ সেরে কলকাতায় ফিরব। তার পর ‘ডা. বক্সী’-র শ্যুটে যোগ দেব। নতুন বছরে হয়তো আমি-বাবা-কৌশানি আবার জোট বাঁধতে পারি। আপাতত এই। মাঝে দিন দশেকের ছুটি নিয়ে ঘুরতে যাব।”

You might also like
Comments
Loading...