বিনোদন

৫ হাজার ঘণ্টার গবেষণা, ১৫ হাজার পৃষ্ঠার নথি, ৭০০ নির্যাতিত কাশ্মীরি পণ্ডিতদের সাক্ষাৎকার, চার বছরের পরিশ্রম বিবেক অগ্নিহোত্রীর ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’

নব্বইয়ের দশকে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের উপর নির্যাতনের কাহিনীর প্রেক্ষাপটে তৈরি হয়েছে পরিচালক বিবেক অগ্নিহোত্রীর ছবি ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’। গত ১১ই মার্চ প্রেক্ষাগৃহে এই ছবি মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই গোটা দেশে যেন সাড়া ফেলেছে এই ছবি। দর্শকদের প্রশংসা কুড়োনোর পাশাপাশি নানান বিতর্কও তৈরি হয়েছে এই ছবি নিয়ে। অনুপম খের, মিঠুন চক্রবর্তী অভিনীত এই ছবির প্রচারের দায়িত্ব নিজেই নিয়েছেন পরিচালক।

দিল্লিতে এক সাংবাদিক বৈঠকে বিবেক অগ্নিহোত্রী ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ তৈরির নেপথ্যের কাহিনী তুলে ধরেন। তিনি জানান যে এই ছবি তৈরি করতে ৫ হাজার ঘণ্টা গবেষণা করতে হয়েছে তাঁকে। প্রায় ১৫ হাজার পৃষ্ঠার নথি সংগ্রহ করেছিলেন তিনি। এদিন ২০ মিনিটের ভিডিও দেখানো হয় যেখানে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের সাক্ষাৎকারের সারাংশ ছিল।

বিবেক অগ্নিহোত্রী আরও বলেন যে তিনি এবং তাঁর স্ত্রী পল্লবী যোশী কাশ্মীরি পণ্ডিতদের সঙ্গে দেখা করার জন্য বিশ্বের অনেক দেশ এবং ভারতের অনেক শহরে ঘুরেছেন। এই ছবি তৈরির আগে তারা ৭০০-রও বেশি নির্যাতিত কাশ্মীরি পণ্ডিতদের সাক্ষাৎকার রেকর্ড করেছিলেন। ২০ মিনিটের এই ভিডিওতে অগ্নিহোত্রী এবং পল্লবী জোশীকে নানান জায়গায় ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে কথা বলার পর তাদের চোখের জল মুছতে দেখা গিয়েছে।

বিবেক অগ্নিহোত্রীর কথায়, যেসমস্ত কাশ্মীরি পণ্ডিতদের উপর নির্যাতন করে তাদের নিজেদের বাড়িছাড়া করা হয়েছিল, তাদের সবথেকে বড় যন্ত্রণার জায়গা হল যে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের সঙ্গে আদপে কী হয়েছিল, তা রাজনৈতিক কারণে বেশিরভাগ মানুষই জানতে পারেন নি। পরিচালক জনান যে সেই সময়কার সরকার এইসব মর্মান্তিক কাহিনী লুকিয়ে ফেলার চেষ্টা করেছিল।

‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’-এর ভূয়সী প্রশংসা করেছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। দেশের ইতিহাসের পাতায় কাশ্মীরি পণ্ডিতদের এই কাহিনী কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা জানতে এই ছবি অবশ্যই দেখা উচিত বলে মনে করেন তিনি। অসম সরকার ঘোষণা করেছে যে এই ছবি দেখার জন্য সরকারি কর্মীরা অর্ধেক দিনের ছুটি নিতে পারেন। তাছাড়া একাধিক বিজেপি শাসিত রাজ্যে এই ছবির টিকিট করমুক্ত করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button