বিনোদন

চার বছরের যাত্রাপথের ইতি, ‘রানী রাসমনি’র অন্তিম পর্বের শুটিং-এ কেঁদে ভাসালেন দিতিপ্রিয়া

‘রানী রাসমনি’ ধারাবাহিক বাঙালি দর্শকের কাছে আর পাঁচটা ধারাবাহিকের মতো নয়। এটা যেন দর্শকের প্রতিদিনের রুটিনের মধ্যে জড়িয়ে গিয়েছে। এটা বাঙালির কাছে একটা আবেগে পরিণত হয়েছে। সন্ধ্যে সাড়ে ছ’টা বাজলেই জি বাংলা খুলে বসে পড়া। কারণ? রানিমা।

তবে দেখতে দেখতে সেই দিন চলেই এল। রানী রাসমনি ধারাবাহিকের রানিমার যাত্রাপথ এবার শেষ হল। এরই পাশাপাশি শেষ এই ধারাবাহিকে দিতিপ্রিয়ার যাত্রাপথও। অন্তিমপর্বের শুটিং ছিল আজ, শুক্রবার। এদিন বেশ আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন সকলেই, বিশেষত দিতিপ্রিয়া।

আরও পড়ুন- ‘কর্তা-গিন্নি এক গাড়িতে চেপেই চলল ডিভোর্স করতে’, সিড-মিঠাইয়ের কাণ্ডকারখানা দেখে হেসেই খুন দর্শক

এই ধারাবাহিকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছিলেন দিতিপ্রিয়া। দিতিপ্রিয়া যখন প্রথম এই চরিত্রে কাজ শুরু করেন, তখন তাঁকে কেবল রানী রাসমনির ছোটবেলার চরিত্রে অভিনয়ের জন্যই ঠিক করা হয়। কিন্তু তাঁর অভিনয় দর্শকদের এত মুগ্ধ করে যে তাঁকে আর পালটানোর সাহস দেখান নি নির্মাতারা।

চার বছরের এই যাত্রাপথ শেষ হওয়ায় অত্যন্ত মন খারাপ অভিনেত্রীর। শুধু তাঁর নয়, গোটা পরিবারের। এই ধারাবাহিক দিতিপ্রিয়ার জীবনের অংশ। প্রতিদিন সময় মতো ইন্দ্রপুরী স্টুডিওতে পৌঁছনোর তাড়া আর থাকবে না, ভেবেই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন দিতিপ্রিয়া। তাঁর মধ্যে যেন রানিমা একপ্রকার বসে গিয়েছিল। মাঝে মধ্যেই নাকি তিনি রানিমার ভাষাতেই কথা বলে উঠতেন।

এই ধারাবাহিকে নিজের যাত্রাপথের শেষ দিনে নিজের অনুরাগীদের কাছে দিতিপ্রিয়ার আবেদন, “আগামী দিনেও যেন সকলে এই ধারাবাহিকের পাশে থাকেন।ক্লাস টেনে পড়ার সময় ‘রাণী রাসমণি’-র পথ চলা শুরু হয়। এখন ফার্স্ট ইয়ারে পড়ি, কিছুদিনের মধ্যেই সেকেন্ড ইয়ারে উঠব, তাই এই জার্নিটা আমার জীবনের সবচেয়ে কাছে হয়ে থাকবে”।

আরও পড়ুন- ক্রিকেটার থেকে টলিউড অভিনেতা, জীবনযুদ্ধে কঠিন লড়াইয়ের মধ্যেও হার না মেনে মানুষকে হাসানোর নাম শুভাশিস মুখোপাধ্যায় 

স্বাভাবিকভাবেই বেশ নস্টালজিক ও আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছেন দিতিপ্রিয়া। এবার নতুন লক্ষ্যে এগিয়ে যাবেন তিনি। নতুন চমক থাকছে তাঁর অনুরাগীদের জন্য। তাঁর আগামী যেন আরও সুন্দর ও আরও সাফল্যে ভরে ওঠে, এর জন্য শুভেচ্ছা রইল আমাদের তরফেও।

Related Articles

Back to top button