সব খবর সবার আগে।

ফের বিতর্কে কঙ্গনা! টুইটারের পর এবার ইনস্টাগ্রাম থেকে মুছে দেওয়া হল অভিনেত্রীর করোনা সংক্রান্ত পোস্ট

গত সপ্তাহেই টুইটারের নীতিবিরোধী পোস্ট করার জন্য টুইটার কর্তৃপক্ষ থেকে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানওয়াতের টুইটার অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এরপরও দেখা যাচ্ছে বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না অভিনেত্রীর। এবার ইনস্টাগ্রাম থেকেও তাঁর পোস্ট সরিয়ে দেওয়া হল। এই নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী আর এই কাজের জন্য ‘কোভিড ফ্যান ক্লাব’কে দোষী ঠাওরেছেন তিনি।

বেশ কয়েকদিন ধরেই জ্বর ছিল কঙ্গনার। চোখের তলায় জ্বালাও ছিল। এই কারণেই গত শুক্রবার কোভিড টেস্ট করান অভিনেত্রী। শনিবার তাঁর করোনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। একথা সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়ে কঙ্গনা লেখেন, “আমি আপাতত কোয়ারেন্টাইনে আছি। আমার শরীরের মধ্যে যে ভাইরাসটা পার্টি করতে শুরু করেছে, বুঝতেও পারিনি। এবার জেনে গিয়েছি। খুব তাড়াতাড়ি একে ধ্বংস করব”।

এরপরই বিস্ফোরক দাবী করে কঙ্গনা লেখেন, এই সংক্রমণ সাধারণ ফ্লু ছাড়া আর কিছুই নয়। সংবাদমাধ্যমের বেশি বাড়াবাড়ির ফলে কিছু মানুষ আতঙ্কে ভুগছেন। তিনি এও অনুরোধ করেন, কেউ যেন নিজের শরীরকে কব্জা করতে না দেন। আতঙ্কিত হলেই কিন্তু সে আরও বেশি করে ভয় দেখাবে। ঐক্যবদ্ধভাবে কোভিড-১৯-কে হারানোর আহ্বান জানান অভিনেত্রী।

তাঁর এই পোস্টটাই ইনস্টাগ্রামের পক্ষ থেকে মুছে দেওয়া হয়েছে। এর জবাবে বিদ্রুপের ভঙ্গিতে ক্ষোভ প্রকাশ করে কঙ্গনা ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে লেখেন, “ইনস্টাগ্রাম আমার পোস্ট ডিলিট করে দিয়েছে। যেখানে আমি করোনাকে ধ্বংস করার কথা বলেছিলাম। কারণ কেউ কেউ তাতে দুঃখ পেয়েছেন। মানে সন্ত্রাসবাদী, কমিউনিস্ট, সমব্যাথী শুনেছিলাম কিন্তু এই কোভিড ফ্যান ক্লাব দারুণ তো মাত্র দু’দিন হল ইনস্টাগ্রামে এসেছি, কিন্তু মনে হচ্ছে না এক সপ্তাহের বেশি থাকবে”।

আরও পড়ুন- ‘বাবা চলে যাওয়ার পর সারাদিন গাঁজা খেয়ে পড়ে থাকতাম’, ‘দেশের মাটি’ দিয়ে নিজের ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প শোনালেন রাহুল

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Kangana Ranaut (@kanganaranaut)

তবে এত কিছুর পর এখনও পর্যন্ত ইনস্টাগ্রাম ছাড়েননি বলিউডের কন্ট্রোভার্সি কুইন। গতকাল ছিল মাতৃ দিবস। এদিন মায়ের একটি সাদা-কালো ছবি পোস্ট করে কঙ্গনা লেখেন যে “যখন আমি বাড়ি ছেড়ে অন্য দুনিয়ায় এলাম, ভাবতে পারিনি সব হঠাৎ করে অন্ধকার হয়ে যাবে। বাবা ফোন করে নানান প্রশ্ন করতেন, ভাই-বোনেদেরও নানান প্রশ্ন ছিল। কিন্তু মা কেবল একটাই প্রশ্ন কিরেন, তুমি কী খেয়েছ? কে রান্না করে দিয়েছে? কোথা থেকে খাবার আনিয়েছ?” তাঁকে ক্রমাগত ভালোবাসা ও সাহস জুগিয়ে যাওয়ার জন্য মা-কে অভিনেত্রী অনেক ভালোবাসা ও ধন্যবাদও জানান।

You might also like
Comments
Loading...