বিনোদন

পায়েল-কেই দুর্গা হিসাবে পছন্দ দর্শকদের! তাদের দাবি কি মেটাবেন চ্যানেল কর্তৃপক্ষ?

পুজোর বাকি আর মাত্র কয়েকদিন। করোনা আবহে পুজোর আয়োজনে কাটছাঁট হলেও আনন্দের তো আর কমতি নেই। মহালয়া থেকেই তো বাঙালির বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস প্রকাশ পায়। উৎসবের সূচনা করেন বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র।

আশ্বিনের শারদপ্রাতে ভেসে আসে তাঁর কণ্ঠস্বর। শুরু হয় মহালয়ার শুভ সন্ধিক্ষণ। এরপর ২ ঘণ্টার অনুষ্ঠান শেষে আমুদে বাঙালি চোখ রাখে টিভির পর্দায়। যা কানে শুনেছি, তা দেখতেও তো হবে। টিভির পর্দায় দেবী দুর্গাকে দেখে সম্পূর্ণ হয় মহালয়ার সকাল। বিভিন্ন চ্যানেলে শুরু হয়ে যায় মহিষাসুরমর্দিনী।

বহু তারকারা দুর্গা রূপে ধরা দিয়েছেন টিভির পর্দায়। কখনও ইন্দ্রানী হালদার, কখনও হেমা মালিনী দেবী দুর্গা রূপে সকলের সামনে আবির্ভূত হয়েছেন। কিন্তু এবার দর্শকদের আবদার অভিনেত্রী পায়েল দে-কেই দুর্গা রূপে ধরা দিতে হবে টিভির পর্দায়। বেশ কয়েক বছর ধরেই জনতা চাইছেন। যাকে বলে পাবলিক ডিমান্ড। অন্তত সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখলে এমনটাই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

নেটপাড়ার বক্তব্য, দুর্গার রুদ্ররূপ ফুটিয়ে তোলার ক্ষমতা রাখেন অভিনেত্রী। একই সঙ্গে তাঁর মধ্যে দিয়েই ফুটে ওঠে স্নিগ্ধতা। এমনকি অভিনেত্রীর বহু পোস্টে তাঁর ভক্তরা অনুরোধ জানিয়েছেন। সকলেরই দাবি, তিনি যেন মহালয়ার সকালে দেবী দুর্গার ভূমিকায় ধরা দেন টিভির পর্দায়। কিন্তু এই বিষয়ে অভিনেত্রী পরিস্কার করে কিছুই জানান নি। সংবাদমাধ্যমের তরফ থেকে তাঁর কাছে এই প্রশ্ন রাখা হয়। জবাবে অভিনেত্রী জানিয়েছেন নেটিজেনদের অনেকেই তাঁকে দুর্গা রূপে দেখতে চাইছেন সে খবর তাঁর কাছে আছে। কিন্তু এই মুহূর্তে কর্তৃপক্ষদের তরফ থেকে তাঁর সঙ্গে কোনও যোগাযোগ করা হয়নি। অভিনেত্রী বলেন, “শুনেছি অনেকেই চাইছেন। কিন্তু আমাকেই দুর্গা হিসাবে ভাবা হচ্ছে কিনা আমি সত্যিই জানি না। এই ব্যাপারে আমাকে এখনও কিছু বলা হয়নি”।

এর আগেও টিভির পর্দায় দুর্গা রূপে বাঙালির মন জয় করেছেন অভিনেত্রী। দুর্গা ধারাবাহিক দিয়েই তিনি দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন। সেই রূপ আজও ভোলেনি কেউই। তাই ফের আরও একবার তাঁকে দুর্গা রূপে দেখতে আগ্রহী দর্শকরা। এদিকে সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, দুর্গা হিসেবে কর্তৃপক্ষের মাথায় রয়েছে অন্য নাম। যদিও সেই নাম নিয়ে এখনই কোনও মুখ খুলতে চান না তাঁরা।

এই মুহূর্তে স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘দেশের মাটি’তে অভিনয় করছেন পায়েল। পাশাপাশি অন্য কাজেও মন দিয়েছেন অভিনেত্রী। ছেলে মেরাকের জন্মের পর কিছুদিন বিরতি নিয়েছিলেন। ছেলের সমস্ত কাজই একা হাতে সামলান। করোনার কারণে এমনিতেই সমস্ত কাজ বন্ধ ছিল বেশ অনেকদিন। টলিপাড়া কাজে ফেরার সঙ্গে অভিনেত্রীও কাজে ফিরেছেন। এরই মধ্যে মুক্তি পেতে চলেছে তাঁর অভিনীত ছবি ‘মুখোশ’। কিন্তু দর্শকদের দাবি তাঁকে দেখার দুর্গা রূপে। তবে কর্তৃপক্ষদের তরফ থেকে এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য আসেনি। মহালয়ার সকালে আদতে দুর্গা রূপে কে ধরা দেবেন টিভির পর্দায় এখনও উহ্য রেখেছেন চ্যানেলের কর্তৃপক্ষরা।

Related Articles

Back to top button