সব খবর সবার আগে।

ভোলবদল! মমতার প্রশংসায় কঙ্গনা, কুর্নিশ জানিয়ে তৃণমূল নেত্রীকে ‘আহত বাঘিনী’র সঙ্গে তুলনা অভিনেত্রীর

এর আগে তিনি বারবার খোলাখুলিভাবেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপির জয়গান গেয়ে এসেছেন। শুধু রাজনৈতিক নয়, নানান বিষয়েই নানান বিতর্কমূলক মন্তব্য করে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানওয়াত খবরের শিরোনামে থাকেন। মোদীর শত্রুকে তিনি নিজের শত্রু বলেই যেন মনে করেন। এই কারণে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলের পর মোদী প্রীতি দেখিয়ে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তুলোধোনা করেন

মমতাকে তীব্র আক্রমণ শানিয়ে কঙ্গনা টুইটে লেখেন, “বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবথেকে বড় শক্তি। ট্রেন্ড থেকেই বোঝা যাচ্ছে হিন্দুরা আর ওখানে সংখ্যা গরিষ্ঠতায় নেই। আর তথ্য অনুযায়ী বাঙালি মুসলিমরা গোটা ভারতের মধ্যে সবথেকে বেশি দরিদ্র ও বঞ্চিত। ভালো, আরো একটা কাশ্মীর তৈরি হচ্ছে”।

আরও পড়ুন- এবার কঙ্গনার রোষের মুখে বাংলা! মমতাকে তীব্র বিদ্রূপ করে পশ্চিমবঙ্গকে কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা অভিনেত্রীর 

কিন্তু এবার হঠাৎ ভোলবদল। সম্পূর্ণ ভোল পাল্টে হঠাৎ করেই সোশ্যাল মিডিয়ায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা করলেন কঙ্গনা। বললেন, ‘খলনায়ক হতে গেলে পরাক্রমী রাবণের মতো হওয়া উচিত। যেমন মমতা দিদি”। শুধু তাই-ই নয়, এদিন নিজের পোস্টে তিনি রাহুল গান্ধীকেও কটাক্ষ করে বলেন যে ‘রাহুল গান্ধীর মতো গোগো যেন না হয় কেউ”।

এদিন কঙ্গনা এও বলেন যে বাংলায় মমতার নিজের সরকার তৈরি করতে সময় লেগেছে ১৪ বছর। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে বিজেপি একটা বিধানসভা নির্বাচনের মধ্যেই ৩টি আসন থেকে তা ৭৭টি আসনে নিয়ে গিয়েছে। এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘আহত বাঘিনী’র সঙ্গে তুলনা করে কঙ্গনা বলেন, “২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে ধাক্কা খাওয়ার পর মমতা আহত বাঘিনীর মতো ঘুরে দাঁড়িয়েছেন”। এর সঙ্গে বিজেপিকে রুখতে মমতা কী কী করেছেন, এর একটি ফিরিস্তি দেন কঙ্গনা।

Mamata founded TMC in 1997.

In 2001 she got 60 seats.

In 2006 she got 30 seats.

She finally came to power in 2011…

Posted by Kangana Ranaut on Monday, 3 May 2021

 

আরও পড়ুন- একদিকে ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ স্লোগান, অন্যদিকে বিজেপি মহিলা কর্মীর উপর নির্মম হামলা, কাঠগড়ায় তৃণমূল

বলেন, “দিল্লির শাহীনবাগে প্রতিবাদ, নির্বাচনের আগে এনআরসি, সিএএ বিল আনতে দেন নি মমতা”। শুধু তাই-ই নয়, মোদীকে সরাসরি মমতা হুমকি ও দেন ‘খেলা হবে’ বলে। এরপ মমতাকে খোঁচা দিয়ে কঙ্গনা বলেন, মমতা অসংখ্য শরণার্থীদের বাংলায় আশ্রয় দিয়ে তাদের ভোটাধিকারের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। মমতার এই সমস্ত পদক্ষেপ গণতন্ত্রের গলা টিপে ধরেছে বলে দাবী কঙ্গনার। কিন্তু মমতা একজন পরাক্রমী খলনায়কের মতো, তাই তাঁকে সর্বশেষে কুর্নিশ জানিয়েছেন অভিনেত্রী।

You might also like
Comments
Loading...