সব খবর সবার আগে।

Sushant Singh Rajput Case: সুশান্তের মুখ দেখলেই নিষ্পাপ লাগে, পর্যবেক্ষণ বোম্বে হাইকোর্টের!

গতবছর যার মৃত্যু আলোড়ন ফেলেছিল ভারতবর্ষে তিনি অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। তাঁর অকাল মৃত্যু ‌ এখন‌ও মেনে নিতে পারেননি তাঁর ভক্তরা। কেন‌ও এই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন সুশান্ত উত্তর এখনও মেলেনি। তাঁর মৃত্যু তদন্ত ক্রমে মাদক তদন্তে পরিণত হয়েছিল। 

তাঁর মৃত্যুতে প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে পুলিশের মূল নিশানায় ছিলেন সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী।

তবে গত ৭ই সেপ্টেম্বর, সুশান্তের দুই দিদি, প্রিয়াঙ্কা সিং, মীতু সিং এবং সুশান্তের চিকিৎসক তরুণ কুমার, এই তিনজনের বিরুদ্ধেও সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া, প্রতারণা, জালিয়াতি এবং অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনেন রিয়া চক্রবর্তী। এফআইআর বাতিল করতে চেয়ে আবেদনের রায় দেওয়ার সময় বিচারপতি এসএস শিন্ডে ও বিচারপতি এমএস করণিকের বেঞ্চ মন্তব্য করে জানায় ‘এমএস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ ছবিতে তাঁর কাজের প্রশংসা করে বলে যে সুশান্তের মুখ থেকে বোঝা যায় যে তিনি একজন ভাল মানুষ।

নিজেদের বক্তব্য তাঁরা জানান, “ঘটনা যা-ই ঘটুক না কেন…সুশান্ত সিং রাজপুতের মুখ দেখলে যে কেউ বুঝতে পারবে, যে ও নিষ্পাপ এবং সোবার… এবং একজন ভাল মানুষ ছিলেন।” তাঁরা আরও বলেন, “তাঁকে সবাই পছন্দ করতে, বিশেষ করে ‘এমএস ধোনি’ ছবিতে।”

সুশান্ত সিং রাজপুতের বান্ধবী রিয়ার অভিযোগ অনুযায়ী, সুশান্তের বোনেরা এবং ডাক্তার মিলে তাঁকে অ্যান্টিডিপ্রেসেন্টসগুলো দেওয়ার জন্য জালি মেডিক্যাল প্রেসক্রিপশন তৈরি করে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সুশান্তকে গত ১৪ই জুন তাঁর মুম্বইয়ের ফ্ল্যাটে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যা মনে হলেও এর পিছনে কোনও রহস্য আছে কিনা, জানতে এখন‌ও তদন্ত চালাচ্ছে সিবিআই। যদিও এইমস-এর তরফে সুশান্তের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

 

 

You might also like
Comments
Loading...