সব খবর সবার আগে।

আমাকে নিয়ে মিডিয়া ট্রায়াল বন্ধ হোক, শীর্ষ আদালতে আর্জি জানালেন রিয়া চক্রবর্তী

এই নিয়ে দ্বিতীয়বার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলেন রিয়া চক্রবর্তী। শীর্ষ আদালতে পিটিশন জমা দিয়ে অভিযোগ করলেন রিয়া, ভারতীয় সংবাদমাধ্যম তাকে জোর করে ভিলেন বানাচ্ছে। তাকে নিয়ে মিডিয়া ট্রায়াল বন্ধ হোক। সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে যেভাবে মিডিয়া রিপোর্ট প্রকাশিত হচ্ছে, সেক্ষেত্রে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে।

সম্প্রতি ইডির তরফে রিয়াকে জেরা করায় ভয়ঙ্কর সব তথ্য উঠে আসছে। রিয়া ভয় পাচ্ছেন যে যেভাবে সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে রাজনীতি জড়িয়ে গিয়েছে তার বলি তাকে না হতে হয়। তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন এবং প্রচণ্ড মানসিক অস্থিরতার মধ্যে দিয়েও যাচ্ছেন। তদন্তের স্বার্থে তার নিরাপত্তা এবং গোপনীয়তা বজায় রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন রিয়া।

পিটিশনে রিয়া লিখেছেন, ‘সুশান্তের মৃত্যু তদন্ত এখনও চলছে। সাক্ষ্যগ্রহণও শেষ হয়নি। কিন্তু ইতিমধ্যেই আমাকে নিয়ে মিডিয়া ট্রায়াল শুরু হয়ে গিয়েছে। মিডিয়া নিজে থেকেই তদন্ত শুরু করে দিয়েছে। এখনও পর্যন্ত সুশান্তের মৃত্যুতে অস্বাভাবিক কিছু পাওয়া না গেলেও তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করছে মিডিয়া। তার বিরুদ্ধে আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ আনা হয়েছে তা এখনো আদালতে প্রমাণ হয়নি। এর আগেও সিবিআইকে এরকম কিছু মামলার ভার দেওয়া হয়েছিল কিন্তু তা আজ পর্যন্ত দিনের আলো দেখতে পেল না।টুজি স্ক্যাম এবং আরুষি তলোয়ারের হত্যা মামলা দুটি হাই-প্রোফাইল মামলা বলে বিবেচিত য়েছিল। পরবর্তীতে কিন্তু অভিযুক্তরাই নির্দোষ বলে প্রমাণিত হয় আদালতে। এদিকে মিডিয়া তাঁদের আসামী বানিয়ে ছেড়েছিল।

যদিও তারই পিটিশনের কথা প্রকাশ্যে আসতেই তিনি আবার নেটিজেনদের বিরাগভাজন হয়েছেন। তাদের একাংশের দাবি সংবাদমাধ্যম সত্যি কথা তুলে ধরছে বলেই রিয়া এখন ভয় পাচ্ছেন। তিনি নিজেই তো কিছুদিন আগে পর্যন্ত দাবি করে এসেছিলেন সিবিআই তদন্তের, এখন যখন সিবিআই তদন্ত শুরু হয়েছে তখন তিনি পিছু হঠছেন কেন?

এদিকে সিবিআই এর তরফে আজ সুশান্ত সিং রাজপুতের পরিবারের সদস্যদের জেরাপর্ব শুরু হয়েছে। অন্যদিকে আজ ইডির অফিসে উপস্থিত হয়েছেন চক্রবর্তী পরিবার। সুশান্তর প্রাক্তন ম্যানেজার ও রিয়ার প্রাক্তন ম্যানেজারকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছে। সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার এবং রিয়ার প্রাক্তন ম্যানেজারকেও ডাকা হয়েছে। গত শনিবার রিয়ার ভাইকে এই মামলায় প্রায় ১৮ ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেন ইডি-র আধিকারিকরা। এদিকে শুক্রবার রিয়াকে টানা সাড়ে আট ঘণ্টার ম্যারাথন জেরা করাতে যা যা তথ্য উঠে এসেছে তা এই মামলাকে আরো জটিল করে তুলেছে। ‌রিয়াকে জেরার পর ইডি সূত্রে দাবি, মুম্বাই পুলিশ যতই সুশান্তের আত্মহত্যার তত্ত্ব প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করুক, এর বাইরে অন্য কোনও তত্ত্বের আভাসও জোরদার হচ্ছে। বিগত কিছুদিনের ঘটনাপ্রবাহ থেকে এই কথা পরিষ্কার যে এই তদন্তে মুম্বাই পুলিশের তরফ থেকে অনেক ফাঁকফোকর রয়েছে।

You might also like
Leave a Comment