বিনোদন

‘কৃষ্ণকলি’-তে নয়া মোড়! মেয়ের মুখ থেকে রক্ত উঠছে দেখে উদ্বিগ্নে শ্যামা ও নিখিল

শুরুর সময় থেকেই বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ‘কৃষ্ণকলি’ ধারাবাহিকটি। সন্ধ্যে সাড়ে সাতটা বাজা মানেই মা-কাকিমাদের টিভির সামনে রিমোট হাতে বসে পড়া। এই বছরেই এউ ধারাবাহিকের অন্যতম মুখ্য চরিত্র নিখিল ওরফে নীল ভট্টাচার্য ও শ্যামা ওরফে তিয়াশা রায়কে মনে জায়গা করে দিয়েছেন দর্শক। টিআরপির দিক দিয়েও বেশ প্রথমের দিকেই থাকে এই ধারাবাহিকটি।

শুধু বাড়ির বউরা নয়, এই ধারাবাহিক দেখার জন্য টিভির পর্দার সামনে আসর জমান অনেক পুরুষেরাও। ধারাবাহিকের পরতে পরতে থাকে টানটান উত্তেজনা যার জেরে টিভির পর্দা থেকে চোখ সরানোই যায় না।

এখন এই ধারাবাহিকে চলছে নিখিল ও শ্যামার পুনর্মিলন পর্ব। ধারাবাহিকের প্রথমেই দেখা যায় এক অদ্ভুত পরিস্থিতিতে পড়ে বিয়ে হয় গ্রামের কালো মেয়ে শ্যামা ও শহরের হ্যান্ডসাম বিজনেসম্যান নিখিলের। ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হয় ও শ্যামা হয়ে ওঠে তাঁর শ্বশুরবাড়ির সকলের চোখের মণি। তবে এই আনন্দের মুহূর্তেই মধ্যেই ষড়যন্ত্রের স্বীকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা শ্যামাকে হারিয়ে ফেলে নিখিল। এরপরই আসে গল্পের নতুন মোড়।

শ্যামা ফিরে আসে নিখিলের জীবনে আর শ্যামার সঙ্গে আসে শ্যামা ও নিখিলের মেয়ে কৃষ্ণা। শ্যামার মতোই তাঁর মেয়ের অসাধারণ গানের গলা। আর এখানেই ঘটে বিপত্তি। শ্যামার মতোই তাঁর মেয়েকেও পড়তে হয় খলনায়িকার কবলে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Zee Bangla Official (@zeebanglaofficial)

প্রথমে জানতে না পারলেও এখন নিখিল জেনেছে যে কৃষ্ণা তাঁর ও শ্যামার মেয়ে। তবে শ্যামাকে ফের ফিরে পেলেও সে তাঁর স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলেছে। তাঁর স্মৃতিশক্তি ফেরত আনতে পরিবারের সকলে শ্যামা ও নিখিলের ফের বিয়ের আয়োজন করেছে। প্রোমোতে দেখা যাচ্ছে যে মা-বাবার বিয়েতে ‘মিলন হবে কতদিনে’ গান গাইছে কৃষ্ণা। এমন সময় ঘটে যায় বিপদ। গান গাইতে গাইতেই তাঁর মুখ থেকে গলগল করে বেরিয়ে আসে রক্ত। সমস্ত আনন্দ বদলে যায় বিষাদে। কৃষ্ণার গলা খারাপ করার জন্য ফন্দী আটে রাধা। সে যাতে গানের প্রতিযোগিতায় অংশ না নিতে পারে, এই কারণেই তাঁর গলা খারাপ করতে উদ্যত হয় রাধা। মেয়ের এই অবস্থা দেখে স্বভাবতই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে নিখিল ও শ্যামা। ইতিমধ্যেই এই প্রোমোর ভিডিওটি বেশ ভাইরাল হয়েছে। রাধা তাঁর উদ্দেশ্যে সফল হয় কী না, এখন সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button