বিনোদন

‘স্ত্রীকে মাটির বাড়িতে রেখে টিভিতে নাটক’, বিদ্রুপ নেটিজেনদের, ‘কোনও নাটক করছি না’, পাল্টা জবাব স্নিগ্ধজিৎ-এর

এবছরের সা রে গা মা পা-র মঞ্চে বাংলা ও বাঙালির ছড়াছড়ি। সেরা ১৬ জন প্রতিযোগীর মধ্যে বাংলা থেকে জায়গা করে নিয়েছেন স্নিগ্ধজিৎ, অনন্যা, কিঞ্জল, নীলাঞ্জনারা। এরা বাংলা রিয়্যালিটি শো সা রে গা মা পা-র প্রতিযোগী ছিলেন। এরা সকলেই নিজ নিজ জায়গায় গায়ক-গায়িকা হিসেবে নাম করেছেন।

২০১৯ সালে বাংলা সা রে গা মা পা থেকে দ্বিতীয় স্থান দখল করেছিলেন স্নিগ্ধজিৎ। এই কারণে সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ কেউ অভিযোগ তুলেছেন যে জি বাংলার সা রে গা মা পা-র প্রতিযোগী হওয়ার কারণে তিনি নাকি বিশেষ সুজগ-সুবিধা পাচ্ছেন। আর এই ঘটনা বেশ আঘাত পেয়েছেন গায়ক।

গতকাল, বুধবার ফেসবুক লাইভে এসে মনের কথা বললেন স্নিগ্ধজিৎ। নিন্দুকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “আমাকে কোনও বাড়তি সুবিধা দেওয়া হয়নি। সরাসরি সুযোগ দেওয়া হয়নি। কলকাতায় একবার, তারপর মুম্বইতে চারবার অডিশন দিয়ে আমি সেরা ১৬-য় নির্বাচিত হয়েছি…আমিও লাইনে দাঁড়িয়েছি। যাঁরা আমার উপর ভরসা রেখেছেন তাঁদের সেই বিশ্বাসের মর্যাদা রাখতে চাই আমি”।

গত সপ্তাহে মেগা অডিশনে ‘বত্তমিজ দিল’ গানটি  গেয়েছিলেন স্নিগ্ধজিৎ। এই গান সকলের মন জয় করেছে। তবে তাঁর কথায়, “আমার চেয়েও প্রতিভাবান গায়ক এই দেশে আছে। তবে হয়ত আমি সৌভাগ্যবান। কিন্তু আগে থেকে কিছু ফিক্স ছিল, আমি এমনই সিলেক্ট হয়েছি তা নয়”।

রবিবারের পর্বে পারফরম্যান্সের পর কেঁদে ফেলেছিলেন স্নিগ্ধজিৎ। এরপর তাঁর স্ত্রী, অদিতি ভিডিও কলে অভিনন্দন জানায় স্নিগ্ধজিৎ-কে। সেইসময় অদিতিকে দেখা যায় টালির চালওয়ালা মাটির বাড়ি-তে। ঘরের ফাটা দেওয়ালও নজরে পড়ে দর্শকদের। তবে এইসব কিছু নাটক নয়।

এই বিষয়ে স্নিগ্ধজিৎ সাফাই দিয়ে বলেন, “অদিতি এই মুহূর্তে আমার গ্রামের বাড়িতে আছে। সেখান থেকে আমি শুরু করেছিলাম। ওটা কোনও নাটক নয়। এখন আপনাদের দয়ায় আমাদের অবস্থা স্বচ্ছল। কিন্তু ওটা আমার গ্রামের বাড়ি। আসলে আমার মা অসুস্থ ছিলেন, নার্সিংহোমে ভর্তি ছিলেন। গতকালই উনি ছাড়া পেয়েছেন। তাই অদিতি গ্রামের বাড়িতে আছে। আমি কিছু মিথ্যা বলিনি। নাটক করিনি”।

স্নিগ্ধজিৎ বেশ স্পষ্টভাবেই বলেন যে অদিতি তাঁর প্রেমিকা নন, তাঁর স্ত্রী। ১১ বছর আগেই বিয়ে করেছেন তারা। তাঁর কথায়, “সহানুভূতি অর্জনের জন্য স্ত্রীকে মাটির ঘরে রেখে দেব, এমন মানসিকতা আমার নেই”। তিনি এও জানান যে ২০০৫ সাল থেকে তিনি গায়ক হওয়ার জন্য স্ট্রাগল চালাচ্ছেন। লকডাউনের জেরে বেশ ক্ষতি হয়েছে তাঁর। এর কারণে সা রে গা মা পা-র মঞ্চে আসা নতুন করে কিছু শুরু করার জন্য।

Related Articles

Back to top button