সব খবর সবার আগে।

অভিনয়, ভাঙা প্রেম, বিয়ে- অভিনেতা জিৎ-এর জন্মদিনে জেনে নিন তাঁর সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য

আজ অভিনেতা জিৎ-এর শুভ জন্মদিন। টলিউডে জিৎ একজন অতি পরিচিত মুখ। বাংলা সিনেমার জগতে সাফল্যের চূড়ায় দাঁড়িয়ে তিনি। তবে কিন্তু এই খ্যাতি, জৌলুস একদিনেই কিন্তু লাভ করেন নি তিনি। সবই তার কঠোর পরিশ্রমের ফল।

ভাঙা প্রেম থেকে শুরু করে বিয়ে,কেরিয়ারে সাফল্য, সব মিলিয়ে এক রহস্যে মোড়া এই অভিনেতার জীবন। জন্মসূত্রে বাঙালি না হলেও জিৎ ছোটো থেকেই বড়ো হয়েছেন দক্ষিণ কলকাতায়। তার পুরো নাম জিতেন্দ্র মদনানী। পারিবারিক সমস্যার কারণে মাঝপথে পড়াশোনা ছেড়ে মডেলিং-এ মন দেন তিনি। নবাব গেঞ্জির বিজ্ঞাপনে প্রথম ক্যামেরার সামনে আসেন অভিনেতা। তার প্রথম ছবি “চন্দু”, একটি তামিল ছবি। কিন্তু সে ছবি সেভাবে সাড়া ফেলেনি।

এরপর ১৯৯৪ সালে বিষবৃক্ষ ধারাবাহিকের মাধ্যমে বাংলা অভিনয় জীবনে পা রাখেন জিৎ। এরপর ‘সাথী’ ছবির মাধ্যমে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন অভিনেতা। এই ছবির জন্য দুটি পুরস্কারও পাম তিনি। এরপর একের এক পর হিট ছবি নিজের দর্শকদের উপহার দিয়েছেন তিনি।

টলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী কোয়েলের অভিনয়ে অভিষেক ঘটে জিৎ-এর বিপরীতেই ‘নাটের গুরু’ ছবির মাধ্যমে। জিৎ ও কোয়েলের জুটি প্রথম থেকেই দর্শকের মন কাড়ে। বেশ হিট হয় এই জুটি। এরপর একে একে বন্ধন, মানিক, দুই পৃথিবী, সাত পাকে বাঁধা, বেশ করেছি প্রেম করেছি-এর মতো সুপারহিট ছবিতে দেখা যায় এই জুটিকে।

অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে জিৎ-এর সম্পর্কের কথা শোনা যায়। ২০০৪-২০০৮ সালের মধ্যে পরপর স্বস্তিকার সঙ্গে বেশ কয়েকটি ছবি করেন জিৎ। তাদের দুজনকে একসঙ্গে প্রায়ই রাত পর্যন্ত পার্টি করতে দেখা যায়। এইসময় গুঞ্জন উঠে স্বস্তিকাকেই নাকিবিয়ে করতে চলেছেন তিনি। এই নিয়ে অবশ্য তারা কেউই মুখ খোলেন নি। এরপর জানা যায়, তাদের ব্রেক-আপ হয়ে গেছে। তবে ব্রেক-আপের কারণও কিছু জানা যায়নি।

এরপর, ২০১১ সালে মোহনা রাতলানির সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন অভিনেতা জিৎ। লখনউ-এর মেয়ে মোহনা, পেশায় স্কুল শিক্ষিকা। এরপর ২০১২ সালে জিৎ ও মোহনার ঘর আলো করে আসে তাদের মেয়ে নবন্যা। মেয়ের সঙ্গে ভারী ভাব তার। কখনও মেয়ের হাতের মালিশ তো কখনও মেয়ের সঙ্গে নাচ, সবেতেই মেয়ের সঙ্গে আনন্দ ভাগ করে নেন অভিনেতা।

অভিনেতা ক্রিকেটের খুব ভক্ত। সেলিব্রিটি ক্রিকেট লিগে কয়েকটি সিজনে ‘বেঙ্গল টাইগার’ দলের অধিনায়ক ছিলেন তিনি। ২০১৩ সালের প্রিমিয়ার ফুটবলের কলকাতা ফ্রাঞ্চাইজির মালিকানায় ছিলেন জিৎ।

নিয়মিত ডাইরি লেখেন অভিনেতা। পার্সোনাল ডাইরি তাঁর সবচেয়ে কাছের। নিজের জীবনের সুখ-দুঃখ, ভালো লাগা, আনন্দ, রাগ-অভিমান, সফলতা-ব্যর্থতা, সবই নিজের ডাইরির সঙ্গে ভাগ করে নেন তিনি।

You might also like
Comments
Loading...