বিনোদন

যত কান্ড লিলুয়াতে!এবার শাশুড়িকে নিয়ে পালাল ঘরজামাই,থানায় গেল মেয়ে

বাংলায় একের পর এক যা ঘটনা ঘটছে তাতে বাঙালি হাসবে না কাঁদবে ঠিক করে উঠতে পারছে না। বর্তমানে একটি খবর চারিদিকে ঘুরছে যে বালির দুই গৃহবধূ রাজমিস্ত্রির সঙ্গে ঘর ছেড়েছেন নিজের ছেলেকে নিয়ে। সেই খবর নিয়ে চারিদিকে শোরগোল পড়ে গেলেও এবার আপনাদের আরেকটি খবর জানাবো যা নিয়ে পড়েছে হইচই। শাশুড়ি কে সঙ্গে নিয়ে পালিয়েছে ঘর জামাই!

হ্যাঁ খবরটা এরকমই। ঘটনাটি ঘটেছে লিলুয়া থানার অন্তর্গত জগদীশপুরে। মা ও স্বামীর নামে থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন মেয়ে। গোটা ঘটনাটি জানতে পেরে হতবাক প্রতিবেশীরা। মেয়ে প্রিয়াঙ্কা দাস জানাচ্ছেন শনিবার মা শেফালী দাস তার জামাই কৃষ্ণ গোপাল দাসের সঙ্গে ঘর ছেড়েছেন। ফোন করে বাড়িতে সে কথা জানিয়েছেন মা স্বয়ং। এর পরেই লিলুয়া থানায় মা ও স্বামীর নামে অভিযোগ দায়ের করেন প্রিয়াঙ্কা।

প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন আজ থেকে চার বছর আগে বীরভূমের সাঁইথিয়ার বাসিন্দা কৃষ্ণ গোপাল দাসের সঙ্গে বিয়ে হয় প্রিয়াঙ্কার। কিন্তু তার স্বামীর কৃষ্ণ গোপাল দাস সেরকম কিছু করতেন না। তাই প্রিয়াংকার বাবা তাকে জগদীশপুরে নিয়ে আসেন। এর মধ্যেই শাশুড়ির সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পরে কৃষ্ণ গোপাল। যা নিয়ে গত সপ্তাহে তুমুল অশান্তি হয়। থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন প্রিয়াঙ্কা।

পুলিশ গ্রেফতার করে কৃষ্ণ গোপাল দাস কে। জামিন পেয়ে সাঁইথিয়া তে ফিরে যান কৃষ্ণ গোপাল। এরপর শনিবার শাশুড়িকে নিয়ে পালিয়ে যান কৃষ্ণ গোপাল। এর পরে ফোন করে শেফালী দেবী বাড়িতে জানান যে তারা পালিয়েছেন কিন্তু কোথায় গেছেন তা জানাননি। এখন মা ও স্বামীর কড়া শাস্তি চান মেয়ে প্রিয়াঙ্কা।

Related Articles

Back to top button