সব খবর সবার আগে।

এক ঢাল লম্বা চুলের রহস্য কী? জানালেন সৌমিতৃষা ওরফে মিঠাই

যেমন টেলিভিশনের পর্দায়, ঠিক তেমনি বাস্তব জীবনেও, উভয়ক্ষেত্রেই সকলের মন জয় করে নিয়েছেন সেই মিষ্টি মেয়েটি। কে সে? সে আর কেউ না, মোদক বাড়ির দুষ্টু-মিষ্টি বউ মিঠাই ওরফে সৌমিতৃষা। ঘন এক ঢাল চুল, শাড়ি, আর মুখে মিষ্টি হাসি, এই দিয়েই চেনা যায় তাঁকে। কিন্তু সৌমিতৃষার এই ঘন লম্বা চুলের আসল রহস্যটা কী? নিজেই জানালেন অভিনেত্রী।

জি বাংলায় কিছুদিন আগেই শুরু হয়েছে ‘মিঠাই’ নামের ধারাবাহিকটি। রাত আটটা বাজলেই মা-কাকিমাদের টেলিভিশনের সামনে বসা চাই-ই চাই। সিদ্ধার্থ ও মিঠাইয়ের খুনসুটি ও মোদক পরিবারের মিষ্টতাই এই ধারাবাহিকের আসল ইউএসপি। তবে এসবের বাইরেও সৌমিতৃষার নিজস্ব একটা জীবন রয়েছে।

আরও পড়ুন- গানের মাধ্যমে কাকে নিজের দিকে ইশারা করছেন মিঠাই? জেনে নিন রহস্য

বাস্তব জীবনেও মজা করতে খুব ভালোবাসেন সৌমিতৃষা। বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে চুটিয়ে আনন্দও করেন সুযোগ পেলেই। তবে এবারের দোলে বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে কাটাতে পারেননি বলে খুবই আক্ষেপ করেন সৌমিতৃষা। এও জানান যে নিজের জন্য সেভাবে সময়ই পান না তিনি। তাহলে নিজের চুলের এত যত্ন করেন কী করে অভিনেত্রী? এমন লম্বা সুন্দর চুলের রহস্যই বা কী? সৌমিতৃষার কথায়, আলাদা করে চুলের জন্য কিচ্ছু করেন না তিনি। সময় পেলে তাঁর মা তাঁর চুলে তেল দিয়ে ম্যাসাজ করে দেন, পরদিন সকালে স্রেফ শ্যাম্পু। ব্যস, এটাই তাঁর চুল চর্চার কাহিনী।

মাঝে মধ্যে ছোটবেলাতেও ফিরে যেতে ইচ্ছে করে সৌমিতৃষার। একথাও জানান নিজেই। তবে নিজের বর্তমান জীবনেও খুব খুশি তিনি। অভিনেত্রীর মতে, নিজের উপার্জনের টাকায় মা-বাবাকে শখ করে কিছু কিনে দেওয়ার আনন্দ বোধ হয়, আর কিছুতে হয় না। নিজের উপার্জিত টাকায় প্রথম মা-কে একটি শাড়ি ও বাবাকে একটি টাই উপহার দিয়েছিলেন সৌমিতৃষা।

আরও পড়ুন- ওর উপর নির্ভর করলে না খেয়ে মরতে হত, শ্রাবন্তীকে নিয়ে বিস্ফোরক রোশন

এমনিতে সৌমিতৃষাকে প্রায়ই দেখা যায় নানান রঙের পোশাক পরতে। কিন্তু তাঁর প্রিয় রঙটি কী? সৌমিতৃষার কথায়, এমনিতে তিনি সব রঙই মোটামুটি পরতে ভালোবাসেন, তবে হলুদ ও লাল তাঁর খুব পছন্দের। মেকআপের ব্যাপারে তিনি অবশ্য খুব খুঁতখুঁতে। তাঁকে এই কারণে ‘মিস পারফেকশনিস্ট’ নাম দেওয়া হয়েছে।

You might also like
Comments
Loading...