সব খবর সবার আগে।

আমি কি জাস্টিস পাব না, পাব না আমি জাস্টিস? মৃত্যুবার্ষিকীতে‌ কদর্য আক্রমণ  প্রয়াত অভিনেতাকে

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর এক বছর পার। ‌ আজও তাঁর মৃত্যু রহস্যে ঘেরা। ‌তিনি শিক্ষাগত যোগ্যতায় ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন, পেশাগতভাবে দারুন অভিনেতা। এছাড়াও ছিল তাঁর বহুমুখী প্রতিভা, গান থেকে নাচ সব জায়গাতেই নিজের আলো ছড়িয়েছেন তিনি। কিন্তু এমন উজ্জ্বল প্রতিভাই গত বছর আজকের দিনে নিজেকে শেষ করে দিয়েছিল।

কিন্তু কেন‌ও? এই প্রশ্নই ঘুরপাক খায় সুশান্ত ভক্তদের মনে। বলিউডে তাঁর মৃত্যু তদন্ত পরিণত হয়েছিল মাদক তদন্তে। মাদক নিতেন সুশান্ত নিজেও। তাঁর স্পষ্ট মাদক যোগ মিলেছিল।সুশান্তের মৃত্যুর পর রহস্য উন্মোচনে তদন্তে নেমেছিল তিন তিনটি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। কিন্তু বিগত ৩৬৫ দিনে সেই তদন্ত অনেকটাই অস্তমিত।

গতকাল থেকেই আজ অনুরাগী থেকে ভক্ত পরিবার, বন্ধুরা আবেগে ভেসেছেন তাঁদের প্রিয় সুশান্তকে নিয়ে। ‌কিন্তু একদল যখন ভালোবাসায় ভরিয়ে দিচ্ছে তাঁদের প্রিয় অভিনেতাকে, অন্য একাংশ তখন মিম বানাতে, শেয়ার করতে ব্যস্ত! প্রয়াত অভিনেতাকে ঘিরে একের পর এক মিম কাল থেকে ভাইরাল  ভাইরাল সোশ্যাল মাধ্যমে।

“গতবছর ভাইরাল হওয়া চাই কাকুর আমরা কি চা খাবো না, খাব না আমরা চা ?” অনুকরণে সুশান্তের মুখে বসানো হচ্ছে ‘আমি কি জাস্টিস পাব না পাব না আমি জাস্টিস?”

এখানেই থেমে থাকেনি তারা, সুশান্তের নামকে বিকৃত করে ‘shoe-শান্ত’ লিখে বানানো হচ্ছে মিম।

কারর আবার মন্তব্য “একজন মাতাল, লম্পটকে নিয়ে মানুষের কত আদিখ‍্যেতা।”

এই ঘটনা কিছুটা হলেও প্রমাণ করে বর্তমান যুগে মানুষের মানসিকতা ঠিক কতখানি নীচে নেমেছে! ঠিক, বেঠিকের বিচার হয়তো করার মতো অনেক সময় পাওয়া যাবে! কিন্তু একজনের মৃত্যু দিনে এই ধরনের রুচির পরিচয় দেওয়া বোধহয় বড্ড আশালীন, কুরুচিপূর্ণ মানসিকতার পরিচয় বহন করে।

You might also like
Comments
Loading...