সব খবর সবার আগে।

হিংসা ছড়াচ্ছেন কঙ্গনা! টুইটার অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড করতেই কেঁদে ভাসালেন অভিনেত্রী

পশ্চিমবঙ্গে ভোট পরবর্তী হিংসা ছড়ানোর দায়ে এবার অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতের টুইটার একাউন্ট সাসপেন্ড করে দিল সংস্থা। আর তার পরই ফেসবুক ভিডিও তে এসে কান্নায় ভেঙে পড়লেন অভিনেত্রী এবং দাবি করলেন যাতে পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হয়!

পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভের পর থেকেই কঙ্গনা রানাওয়াত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে লাগাতার টুইট করতে শুরু করেন। তিনি বলেন যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভোটে জিতেছেন রোহিঙ্গা এবং মুসলিমদের সাহায্যে! এছাড়াও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিনি আহত বাঘিনী হিসাবে ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, তিনি রাজ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হেলিকপ্টার নামতে দেননি। কেন্দ্রকে হুমকি দিয়েছেন, সিএএ এনআরসি বন্ধ করে দিয়েছেন। বিজেপি কর্মীদের হত্যা করেছেন এবং খোলাখুলি গুন্ডামি করেছেন। শরণার্থীদের ভোটার কার্ড দিয়েছেন।

এছাড়াও তিনি বেঙ্গল ইস বার্নিং হ্যাশট্যাগ দিয়ে প্রচুর টুইট করতে থাকেন পরপর। তবে টুইটার কর্তৃপক্ষ বারংবার ওয়ার্নিং দেন তাও তিনি না শোনায় শেষ পর্যন্ত তার একাউন্ট চিরকালীন সাসপেন্ড করে দেয় সংস্থা। তার বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক হিংসা ছড়ানোর অভিযোগ এসেছে। এছাড়াও ভোট-পরবর্তী বাংলায় উস্কানিমূলক মন্তব্য দিয়ে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে তার বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন এক আইনজীবী।

আরও পড়ুনঃ ‘মমতা একটা দানবের মতো’! বাংলার আইনশৃঙ্খলা নষ্ট ও অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগ কঙ্গনার বিরুদ্ধে, মামলা দায়ের পুলিশে

এরপরে ফেসবুক থেকে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন অভিনেত্রী যেখানে তাকে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায় যদিও তিনি তার টুইটার একাউন্ট সাসপেন্ড হওয়ার কিছু বলেননি তবে জানিয়েছেন তিনি ফেসবুক এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকেই নিজের বক্তব্য রাখবেন। এছাড়াও তিনি বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার দাবি জানিয়েছেন।

আরও পড়ুনঃ এবার কঙ্গনার রোষের মুখে বাংলা! মমতাকে তীব্র বিদ্রূপ করে পশ্চিমবঙ্গকে কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা অভিনেত্রীর

যদিও তার ভিডিও প্রকাশ হতেই ট্রোল হওয়া শুরু হয়ে গিয়েছে।অনেকেই বলছেন তিনি নিজের রাজ্য নিয়ে মাথা ঘামালেই হবে বাংলা নিয়ে তার মাথা ঘামানোর দরকার নেই। যদিও কঙ্গনার সমর্থনে অনেকেই বলেছেন।

You might also like
Comments
Loading...