সব খবর সবার আগে।

‘পরিবারের মধ্যে তো ঝামেলা হয়েই থাকে’, নতুন করে কোন ঝামেলায় জড়িয়ে পড়লেন রাজ ও দেব?

রাজ চক্রবর্তী ও দেব, টলিপাড়ার অতি পরিচিত দুই মুখ। একজন অভিনেতা-প্রযোজক, আর একজন পরিচালক-প্রযোজক। আবার অন্যদিক দিয়ে দেখতে গেলে দুজনেই তৃণমূলের রাজনীতিবিদ। তবে কী কোনও সমস্যা তৈরি হয়েছে এই দুই তারকার মধ্যে? নাহলে এরকম কথা উঠবেই বা কেন?

না, গল্প অন্য জায়গায়। সমস্যাটা দুজনের মধ্যে নয়। বরং দুজনেই চাইছেন সমস্যাটা যেন তাড়াতাড়ি মিটে যায়। আসলে, লকডাউনের পর থেকে ‘শুট ফ্রম হোম’-কে কেন্দ্র করে বেশ গোল বেঁধেছে প্রযোজক ও ফেডারেশনের মধ্যে। কখনও দোষারোপ করা হচ্ছে প্রযোজকদের তো কখনও আবার তোপ দাগা হচ্ছে ফেডারেশনকে।

আরও পড়ুন- ‘অনেক কিছু বলার থাকলেও চুপ করে রয়েছি’, কোন কথা বলতে চেয়েও বলতে পারছেন না নুসরত?

এরই মধ্যে গত রবিবার থেকে সিনে ফেডারেশনের উদ্যোগে টলিপাড়ায় টিকাকরণ কর্মসূচী শুরু হয়েছে। এদিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, ফেডারেশন সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস, রাজ চক্রবর্তী ও দেবও। দেব ও রাজের উপস্থিতিতে প্রশ্ন ওঠে যে ফেডারেশন ও প্রযোজকদের মধ্যে যে অশান্তি চলছিল, তা কী তাহলে মিটেছে?

এই বিষয়ে দেব জানান, “ইন্ডাস্ট্রির সবাই একমত হয়ে কাজ করুক। ভ্যাকসিন হয়ে যাচ্ছে। আশা করা যায় এবার এবার সহজ ভাবে শুটিং করা সম্ভব হবে”। অন্য দিকে রাজের গলাতেও শোনা গেল একই সুর। ফেডারেশন ও প্রযোজকদের মধ্যে চলা ঝামেলা প্রসঙ্গে রাজ জানালেন, “পরিবারে এমন ঝামেলা তো হয়েই থাকে। বড় করে দেখা দরকার নেই। সব ঠিক হয়ে যাবে”।

আরও পড়ুন- ব্রাজিলের করোনার নয়া প্রজাতির খোঁজ মিলল ভারতে, কাজে দেবে না কোনও টিকা, উদ্বিগ্ন বিশেষজ্ঞমহল

গত মঙ্গলবার এই টিকাকরণ কর্মসূচীতে উপস্থিত থেকে স্বরূপ বিশ্বাস জানান যে, আগামী শনিবারের মধ্যে টলিপাড়ার সকলকে টিকা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এরপর ১৫ দিন পর একটি রিভিউ হবে। সেখানে যেসমস্ত শিল্পী ও টেকনিশিয়ানরা বাকী থাকবেন, তাদের জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এই টিকাকরণ কর্মসূচীর ৫০ থেকে ৫৫ শতাংশ খরচ বহন করেছে ফেডারেশন ও বাকী টিকা সরকারের তরফে দেওয়া হয়েছে।

You might also like
Comments
Loading...