সব খবর সবার আগে।

WB Election 2021: রাজনীতিতে সম্পর্কের নতুন সমীকরণ! নুসরতের থেকে রাজনীতির টিপস নেব না, অকপটে সদ্য বিজেপি নেতা যশ

একদিকে যশ দাসগুপ্ত ও নুসরত জাহানের ঘনিষ্ঠতা নিয়ে টলিপাড়ায় বেশ শোরগোল পড়ে গিয়েছে। দুজনের সম্পর্কের ঘনিষ্ঠতাই নাকি নুসরতের দাম্পত্য জীবনের ভাঙনের কারণ, এমনও শোনা যাচ্ছে। এরই মাঝে চলতি সপ্তাহে বিজেপিতে যোগ দিয়ে সকলকে চমকে দেন যশ। কারণ তাঁর ‘বন্ধু’ তৃণমূলের সাংসদ। এই নিয়েও জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে।

টলিউডে মিমি-নুসরতের কাছের বন্ধু হিসেবেই পরিচিত যশ। তাঁর এই দুই বন্ধুই আবার তাঁর বিরোধী দল তৃণমূলের সাংসদ। সম্প্রতি, এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে যশকে জিজ্ঞাসা করা হয় যে তিনি কী নুসরতের থেকে রাজনীতির টিপস নেবেন? এই প্রসঙ্গে যশ জানান, “শুধু নুসরত, মিমি নয়, দেবও আমাকে মেসেজ করেছে শুভেচ্ছা জানিয়েছে। কিন্তু আমি রাজনীতির পাঠ কারোর থেকেই চাইব না। আমি যে দলে ধুকেছি তার থেকে বড় রাজনৈতিক টিপস আমাকে অন্য কেউ দিতে পারবে না”।

আরও পড়ুন- গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েই অমিত শাহ্’র সঙ্গে সাক্ষাৎ যশ দাশগুপ্তের, হল রুদ্ধদ্বার বৈঠক

বিরোধী দলের সদস্য হলেও রাজনীতিতে যশের থেকে সিনিয়র মিমি-নুসরত- দেবরা। যশের কথায়, “টিপসে বিশ্বাস কী করে করা যাবে, যে ফিল্ডের কথা হচ্ছে সেখানে তো টিপস অ্যান্টি হয়ে যেতে পারে। যদি দুটো টিম আলাদা হয়, তাহলে মাঠের বাইরে তোমরা যতই বন্ধু হও না কেন, তুমি যদি অন্য টিমের সদস্যের কাছে টিপস নিতে জাও, তাহলে তো তোমার টিম হেরে যাবে”।

তাহলে কী যশ বিধানসভা নির্বাচনের প্রার্থী হচ্ছে? এই প্রসঙ্গে তিনি জানান যে তিনি যদি ভোটে দাঁড়ান ও জিতে যান, তাহলে নিজের এলাকার মানুষের সঙ্গে জনসংযোগ জোরদার করবেন তিনি। এও বলেন যে তিনি লক্ষ্য রাখবেন যাতে তাঁর এলাকার মানুষের তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ না থাকে। কেউ যেন এটা না বলতে পারেন যে, ভোটের পর তারকাদের আর দেখা যায় না।

আরও পড়ুন- যশ, হিরণের পর কী এবার সোহিনীও বিজেপিতে? মুখ খুললেন অভিনেত্রী নিজেই

অভিনেতা জানান যে আগামীদিনে তিনি অভিনয় ছাড়লেও রাজনীতিতে মূল ফোকাস করতে চান তিনি। যশ মিমি-নুসরত-দেবের মতোই টলিপাড়ার হেভিওয়েট স্টার। তাই তাঁর বিজেপিতে যোগদান আগামী নির্বাচনে ত্রুপের তাস হতে পারে গেরুয়া শিবিরের পক্ষে, এমনটাও মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

You might also like
Comments
Loading...