বিনোদন

ক্ষমাপ্রার্থী! নানা বিতর্কের মধ্যে ‘মহাকাল থালির’ বিজ্ঞাপন প্রত্যাহার করল জোমাটো, ক্ষমা চেয়ে করা হ’ল ট্যুইট

মানুষের রোষের মুখে বিজ্ঞাপন প্রত্যাহার করতে বাধ্য হল জোমাটো। হৃত্বিক রোশনের এই বিজ্ঞানটি দেখে জোমাটো উপর চটে গিয়েছিলেন মধ্যপ্রদেশের বাসিন্দারা। ক্ষমা চেয়ে সেই বিজ্ঞাপনটি প্রত্যাহার করতে বাধ্য হ’ল জোমাটো।

সংস্থা তরফে ট্যুইট করে বলা হয়েছে, ‘আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। কারও বিশ্বাস কিংবা ভাবাবেগে আঘাত করার কোনও অভিপ্রায় আমাদের ছিল না।’ জোমাটোর আরও বলে, ‘মহাকাল রেস্তরাঁয় দেখানো থালির সঙ্গে শ্রী মহাকালেশ্বর মন্দিরের কোনও সম্পর্ক নেই। আমাদের এই বিজ্ঞাপন প্যান ইন্ডিয়া কর্মসূচির অন্তর্গত। তার জন্যই আমরা বিভিন্ন রাজ্যে বিখ্যাত জায়গা এবং সেখানকার জনপ্রিয় রেস্তরাঁ ডিশগুলিকে বেছে নিয়েছি। এ ক্ষেত্রেও মহাকাল রেস্তরাঁ বিশেষ থালিকেই টার্গেট করা হয়েছিল। শ্রী মহাকালেশ্বর মন্দিরের ভোগ প্রসাদের সঙ্গে এর কোনও মিল নেই।’

বিজ্ঞাপনে দেখা গেছে, হৃত্বিক রোশনের থালি খেতে ইচ্ছা হয়। সে ‘মহাকাল থালি’ অর্ডার দিয়েছে জোমাটো থেকে। মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়িনীর মহাকালেশ্বর মন্দিরের দুই পুরোহিত এই বিজ্ঞাপন দেখে চটে যায়। তাঁরা দাবি করে, মন্দিরের ভোগ কোন অনলাইন ফুড ডেলিভারি অ্যাপে অর্ডার দেওয়া যায় না।

শুধুমাত্র মহাকালেশ্বর মন্দিরের পুরোহিতরাই নয়, হিন্দু জনজাগৃতি সমিতির তরফে একটি ট্যুইটে করে বলা হয়েছে, ‘মহাকাল কারও নির্দেশে খাবার দেয় না। ভগবানের প্রসাদ দেওয়া হয়। কী ভাবে জোমাটো ধর্মে আঘাত করার সাহস করতে পারে!’ এরপরই গতকাল জোমাটোর তরফে ট্যুইট করে ক্ষমা চাওয়া হয়।

Related Articles

Back to top button