সব খবর সবার আগে।

এভাবেই খুশি করুন মা লক্ষ্মীকে, টাকা আসবে চুম্বকের মতো

শারদীয়ার শেষে অনেকেরই মন ভারাক্রান্ত হয়ে থাকে, আবার এক বছরের অপেক্ষা, তারপর মা আবার আসবেন মর্ত্যে। কিন্তু এরই মাঝে মা লক্ষ্মী পদার্পণ করে বাঙালীর ঘরে ঘরে। লক্ষ্মীদেবীর আরাধনায় মেতে ওঠে মানুষ। আর হবে নাই বা কেন, লক্ষ্মীদেবীর কৃপাদৃষ্টি ছাড়া সংসারে সুখ-সমৃদ্ধি কোনওটাই সম্ভব নয়।

কথিত রয়েছে, অতীত কালে অনেক মানুষ অনেক কঠোর পরিশ্রম করেও লক্ষ্মীদেবীর কৃপা থেকে বঞ্চিত হয়েছে, আবার অনেক মানুষ এমন আছেন যারা অতি অল্প পরিশ্রমেই লক্ষ্মীদেবীর আশীর্বাদ পেয়েছেন। আসলে লক্ষ্মী মানেই যে শুধুই অর্থ, প্রতিপত্তি, তা নয়। অর্থ থাকলেই যেমন মানুষ সুখের অধিকারী হয় না, তেমনি শুধু লক্ষ্মীর আরাধনা করলেই শুধু সুখ পাওয়া যায় না। মানুষ লক্ষ্মীদেবীর আরাধনা করে সংসারে সমৃদ্ধি লাভ ও সর্বদা সুখের আশায়। কিন্তু ঠিক কী উপায়ে লক্ষ্মীদেবীকে খুশি করা যায় তা অনেকেই হয়ত জানেন না। আসুন দেখে নিই কী কী করলে মা লক্ষ্মী খুশি হন।

• ঠাকুরের স্থানে লক্ষ্মী প্রতিমা বা ঘটের সামনে পয়সা জমানোর একটি ঘট রাখুন। সেই ঘটে নিয়ম করে রোজ কিংবা প্রতি বৃহস্পতিবারে অল্প অল্প করে অর্থ সঞ্চয় করুন।

• শুধু সন্ধ্যেবেলাই নয়, লক্ষ্মীপুজোর দিন সকাল থেকেই লক্ষ্মী প্রতিমার সামনে ঘিয়ের প্রদীপ জ্বালান।

• লক্ষ্মী ঠাকুরের ঘটে আম্র পল্লব ও জবা ফুল দিতে যেন ভুলবেন না।

• লক্ষ্মীপুজোর দিন অবশ্যই লক্ষ্মীর পাঁচালি পড়ুন। বাড়ির গৃহিণীরা পুজোর দিন পায়ে আলতা পরবেন।

• যারা চাকুরীজীবী, তারা যখনই সময় পাবেন তখনই ‘মা লক্ষ্মী নমঃ’। এই মন্ত্রটি জপ করুন। পুরুষেরাও এই মন্ত্র জপ করতে পারেন।

লক্ষ্মীপুজোর সময় এই নির্দিষ্ট কতকগুলি নিয়ম মেনে চলুন, আপনার সংসারে লক্ষ্মীদেবীর আশীর্বাদ সর্বদা বিরাজ করবে।

You might also like
Comments
Loading...