সব খবর সবার আগে।

কেমন করে চিনবেন কে আপনার প্ৰকৃত বন্ধু আর কে নয়! চাণক্য নীতির কথা জেনে নিন

কূটনীতির বিষয়ে যখনই কোনো কথা ওঠে তখনই মানুষের স্মরণে আসে একটা নাম চাণক্য। শুধু যে অর্থনীতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান নিয়েই তাঁর অগাধ পান্ডিত্য ছিল তা নয় তিনি একজন উপদেষ্টাও ছিলেন। জীবন সম্বন্ধে তাঁর উপদেশগুলি আজও মানুষ জীবনের পথে পাথেয় করে চলেন। বিশেষত মানুষ চেনার ক্ষেত্রে তাঁর যে জ্ঞান, যে দৃষ্টি তা মানুষকে আজও ভাবতে শেখায়।

একজন মানুষ ছোট থেকে বড়ো হওয়ার পথে, কর্মক্ষেত্রে, জীবনসঙ্গী হিসেবে অনেক মানুষকেই সঙ্গে পান। অর্থাৎ একজন মানুষের জীবনে তাঁর বন্ধুবান্ধব, আত্মীয় পরিজন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে থাকেন। কিন্তু এক্ষেত্রেও মানুষের সতর্ক থাকার প্রয়োজন রয়েছে। এই বিষয়েও অনেক কথা বলেছেন চাণক্য।

চাণক্য বলেছেন আনন্দের সময় যারা পাশে থাকেন তাঁরা কিন্তু আপনার সত্যিকারের বন্ধু নাও হতে পারে। কারণ আনন্দের সময় পাশে থাকলেও অনেক বন্ধুই বিপদের সময় পাশে থাকে না। তাই চাণক্য নীতি বলে, সত্যিকারের বন্ধুকে একমাত্র বিপদের সময়েই চিনতে পারা যায়। যে বন্ধু খারাপ সময়ে আপনার কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে সেই আপনার প্রকৃত বন্ধু। সুতরাং, বন্ধু বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রেও চাণক্য নীতি একান্তই প্রয়োজন।

চাণক্যের মতে, যদি কেউ ধন-সম্পদ দেখে আপনার সঙ্গে বন্ধুত্বের সম্পর্ক করতে চান তবে এখনই সাবধান হয়ে যান। কারণ এই ধরণের বন্ধুত্বের ক্ষেত্রে আপনার জীবনে ঘনিয়ে আসতে পারে সমূহ বিপদ। যিনি আপনার সম্পদ ও প্রতিপত্তি দেখে আপনার সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করেন, তিনি কিন্তু আপনার সম্পদ না থাকলে আপনাকে ছেড়ে চলেও যেতে পারেন। এমনকি যারা অসত্য কথা বলে আপনাকে খুশি করার জন্য, তাদেরও এড়িয়ে চলুন। কারণ মিথ্যা ভাষণ মধুর হলেও তা আপনার জন্য ক্ষতিকর। কিংবা যারা অবাস্তব বলেন তারা কিন্তু কখনই সত্যিকারের বন্ধু হতে পারে না। এই ধরনের লোকদের সঙ্গ যত দ্রুত ত্যাগ করবেন ততই মঙ্গল হবে আপনার জন্য। এইসকল উপদেশ মাথায় রাখলে আপনি নিশ্চয় জীবনে নিজের মনের মতো মানুষ পছন্দ করতে পারবেন।

You might also like
Leave a Comment