লাইফ স্টাইল

করোনা সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা একটু ভালো করে জানুন

করোনার চিকিৎসা নেই বলে যে যা পারছে যেমন পারছে ভুলভাল ভুয়ো খবর চারিদিকে ছড়িয়ে দিচ্ছে। অযথা ভুয়ো খবরে কান না নিয়ে, প্যানিক না হয়ে করোনা সম্পর্কিত কিছু সত্যতা জানুন।

– মুরগীর মাংসে করোনা আসা সম্ভব নয়৷ আমি আগেও বলেছি করোনা ভাইরাস চিনের সাপ ও বাদুড় থেকে ছড়িয়েছে। আপনি যদি সাপ ও বাদুড় খাওয়ার মত বিচিত্র শখ না রাখেন আপনাকে মুরগী বা মাটন খাওয়ার থেকে কেউ আটকাতে পারবে না৷ আয়েস করে খান। অযথা ফেসবুকের রোগ বিশেষজ্ঞদের কথা শুনবেন না। দরকারে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

– করোনা ভাইরাসের আয়ু মাত্র ১২ দিন। মায়াদের ভারতীয় জলবায়ুতে সে অভিযোজিত হতে পারছে না একেবারেই। WHO র মত ভারতের এই বৈচিত্রময় আবহাওয়ার জন্যে করোনা তার হোস্ট পাচ্ছে না। হলে সে কোনো ভাবেই বংশবিস্তার করতে পারছে না। ফলে ভারতে করোনায় আক্রান্ত লোক পাওয়া গেলেও করোনায় মৃত লোক পাওয়া যাবে না।

– নাক থেকে জল পড়লে, মাথা ব্যথা করলে, কাশি হলেই সেটা করোনা নয়। আবহাওয়ার পরিবর্তনে এটা খুব সাধারণ ঘটনা। করোনা আমাদের দেশে অনেকটা ফ্লুয়ের মত আচরণ করব। সুতরাং ভয়ের কারণ শূন্য।

– হ্যান্ড ড্রায়ারে হাত শুকালেই করোনা ভাইরাস মরে না। ভাইরাসকে কখনোই ওভাবে মারা যায় না। প্রতিটা ভাইরাসের নির্দিষ্ট অভিযোজন ক্ষমতা আছে।

– যে কোনো বয়সের লোকই করোনায় আক্রান্ত হতে পারে। মাস্ক পরলেই আপনি রক্ষা পাবেন এমনটা নয়৷ করোনার জন্যে নির্দিষ্ট মাস্ক আছে।

– গ্লাভসের ক্ষেত্রেও তাই।

– অ্যালকোহল বা গাঁজা খাওয়ার ফলে করোনা আপনাকে আক্রমণ করবে না। এটাও ভুল ধারণা। অ্যালকোহল খেলে সাময়িক গা গরম থাকে। তার ফলে কিঞ্চিৎ হলে সাময়িক তার আক্রমনের হাত রেখে রক্ষা পেতে পারেন।

– অযথা গায়ে অ্যালকোহল বা ক্লোরিন স্প্রেড করে নিজের ত্বকের ক্ষতি করবেন না। করোনা কখনোই ওভাবে আটকানো যায় না।

– গোমূত্র পান করলেও করোনা কমে না।

– চিন থেকে আসা সকল খাবারে করোনা নেই। আছে কেবল সাপ ও বাদুড়ে।

– চিনের রঙে কোনো করোনা নেই। চিনের অন্যান্য দ্রব্যে কোনো করোনা নেই।

– করোনা ভাইরাস নিয়ে ভুয়ো তথ্য ছড়িয়ে অযথা প্যানিক তৈরী করবেন না। এটি অত্যন্ত বাজে একটি কাজ। করোনা করোনা করে করোনার নাম যপ না করে জ্বর বা সর্দি হলে ডাক্তার দেখান। ডাক্তারের প্রতি আস্থা রাখুন৷ নিজেই গুগল খুলে বিশেষজ্ঞ হয়ে বসবেন না। যে লোকটা ৫ বছর কষ্ট করে পড়ে আরো ৩ বছর প্র‍্যাক্টিস করে একটা জায়গা তৈরী করেছে সে মানুষের জ্ঞান আপনার গুগলের চাইতে বেশি হবে।

– ইতিহাস, বাংলা, ভূগোল ইত্যাদি বিষয় নিয়ে পড়ে আচমকাই বিজ্ঞানী হয়ে উঠবেন না। প্রতিটা বিষয়ের প্রতি সম্মান রেখেই বলছি আমাদের কাজ আমাদের করতে দিন। রিসার্চের কাজটা আমাদের। আপনাদের নয়।

ভালো থাকুন। অপপ্রচার থেকে দূরে থাকুন। মিথ্যে খবরে বিশ্বাস করা বন্ধ করুন। ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলুন। সেরকম পরিস্থিতি হলে তারাই রেড অ্যালার্ট জারি করবেন যেটা চিনে হয়েছে। অযথা লাফালাফি করে অন্যকে আতঙ্কিত করে তুলবেন না।

Related Articles

Back to top button