সব খবর সবার আগে।

আজ মাতৃদিবসের শুভ সূচনার মুহূর্তে জেনে নিন এই বিশেষ দিনটির পিছনে তাৎপর্য কি?

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আজ আন্তর্জাতিক মাতৃদিবস। আজ প্রতিটি মায়ের তার সন্তানকে সুস্থ রাখার ও ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার পিছনে, তাঁর সারা জীবনের অবদানকে স্মরণ করার দিন। আজকের দিনে প্রত্যেক সন্তান তাঁর মায়ের প্রতি তাদের অকৃত্রিম ভালোবাসা ব্যক্ত করে থাকে। যে মানুষটি বিনা কোনো প্রত্যাশা নিয়ে ২৪ ঘন্টা ৩৬৫ দিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেন, তাঁর সন্তানের জন্য খাবার বানানো থেকে শুরু করে তার প্রতিটি ছোট-বড়ো প্রয়োজন যিনি হাসি মুখে পূরণ করে থাকেন, তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপনের জন্য শুধু একটি মাত্র দিন কি যথেষ্ট? না একদমই নয়।

মাতৃ দিবসেরও কোনো নির্দিষ্ট দিন নেই। প্রতিবছর মে মাসের দ্বিতীয় রবিবার মাতৃদিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়। এই বছর ১০ই মে সেই বিশেষ দিন উদযাপন করা হচ্ছে।

এবার জেনে নেওয়া যাক এই বিশেষ দিনের তাৎপর্য।

মাতৃদিবস প্রথমবার উদযাপন করা হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। আমেরিকা অধিবাসী আন্না জার্ভিসের মা মৃত্যুর আগে তার সন্তানের কাছে এই দিনটি উদযাপন করার ইচ্ছা প্ৰকাশ করেন। জার্ভিস তাঁর মায়ের মৃত্যুর তিন বছর পর তার মায়ের স্মরণে ১৯০৮ সালে পশ্চিম ভার্জিনিয়ার সেন্ট এনড্রিউস মেথডিস্ট চার্চে এই দিনটি প্রথম উদযাপন শুরু করেন। যদিও তিনি সশরীরে সেখানে উপস্থিত ছিলেন না, বরং তিনি সেই অনুষ্ঠানে মাতৃদিবসের মাহাত্ম্যকে তুলে ধরে একটি টেলিগ্রাম প্রেরণ করেন। তিনি সেখানে লেখেন, তিনি মনে প্রাণে বিশ্বাস করেন “এই পৃথিবীতে মা-ই এমন একজন মানুষ যে সবার থেকে বেশি সন্তানের জন্য করবেন।”

দিনটির ইতিহাস:

আজ যে ধুমধাম করে আমরা মাতৃদিবস পালন করছি তার শুরুটা কিন্তু এত মসৃন ছিল না। আন্না জার্ভিস ১৯১১ সালে তাঁর মায়ের স্মৃতি স্মরণ করে দিনটিকে মাতৃদিবস উপলক্ষে ছুটির দিন ঘোষণা করার আবেদন করলে, তা যুক্তরাষ্ট্র সরকারের কাছে প্রত্যাক্ষিত হয়। তবে ছুটির দিন হিসেবে গণ্য না হলেও ওই দিনটিকে মায়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের দিন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। এরপর সাল ১৯৪১, মার্কিন রাজনীতিবিদ তথা আইনজীবি উড্রো উইলসন ঘোষণা করেন যে, প্রতি বছর মে মাসের দ্বিতীয় রবিবার দিন মাতৃদিবস উপলক্ষে জাতীয় ছুটির দিন হিসেবে নির্বাচিত করা হল। এরপর থেকে আজ অবধি এই দিনটিকে মাতৃদিবস হিসেবে পালন করা হয়।

আবার মতান্তরে অনেক বলেন এই দিনটি Mother Church-কে স্মরণ করে ‘Christian Mothering Sunday’ হিসেবে পালন করা হয়। আবার আরবীয় দেশগুলিতে ২১শে মার্চ বসন্ত বিষুবের দিন মাতৃদিবস উদযাপন করা হয়। তবে যেদিনই মাতৃদিবস পালিত হোক না কেন তার মূল মন্ত্র কিন্তু একই থাকে মায়ের প্রতি ভালোবাসা জ্ঞাপন।

সবশেষে ‘খবর ২৪x৭’ পরিবারের তরফ থেকে প্রত্যেক মাকে তাঁর অকৃত্রিম ভালোবাসা ও স্নেহের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রইল মাতৃদিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.