সব খবর সবার আগে।

আজকের দিনে কেন পালন করা হয় নীল ষষ্ঠী, নিয়ম কানুন সহ জেনে নিন

চৈত্র সংক্রান্তির আগের দিন নীল পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এই দিনটি মূলত শিব দুর্গার বিবাহবার্ষিকী উপলক্ষ্যে পালন করা হয়। শিবের অপর নাম নীলকণ্ঠ। তাঁর সঙ্গেই বিয়ে হয় নীলাবতী পরমেশ্বরী। আর বিয়ের এই লৌকিক আচার মেনেই তারই নাম নিয়ে পুজো করা হয়। নীলের ব্রত নিষ্ঠা ভরে পালন করলে মেয়েদের আর কোন দুঃখ কষ্ট থাকে না। তাই হিন্দু রীতি মেনে হিন্দু নারীরা সন্তানের মঙ্গল কামনায় পুজো করে থাকেন।

তবে এই নীল পুজোর সঙ্গে ‘ষষ্ঠী’ নামটি কেন জুড়ে দেওয়া হল? সন্তানের মঙ্গল কামনায় বা সন্তান লাভের জন্য যেমন মা ষষ্ঠীর পুজো করা হয়। তেমন পয়লা বৈশাখের আগে হয় ‘নীল ষষ্ঠী’। আগে কিন্তু পঞ্জিকায় ষষ্ঠী তিথি থাকেনা। অশোক ষষ্ঠী, লোচন ষষ্ঠী, জামাইষষ্ঠীর মতন এটি কোন ষষ্ঠী ছিল না।

লোককথা থেকে জানা যায়, এই সময় ঋতু পরিবর্তন হয় তাই ভগবানের থানে গিয়ে সন্তানের মায়েরা তাদের সন্তান যেন সুস্থ থাকে এমন কথা জানান। তাই বোধহয় শিব, পার্বতীর বিয়ের দিন এর সঙ্গে ‘ষষ্ঠী’ কথাটা জুড়ে গেছে।

এবার দেখা যাক নীল ষষ্ঠী করার পদ্ধতি-

◆সারাদিন অর্থাৎ সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত উপবাস করা হয়।

◆দুধ, গঙ্গাজল, মধু, নারকেল জল ঢালা হয় শিবলিঙ্গে।

◆শিব পূজার মতো এতেও থাকে আকন্দ ফুল ও বিল্ব পত্র।

◆আর এই পুজোর জন্য উৎসর্গীকৃত পাঁচটি ফলের মধ্যে একটি বেল থাকা আবশ্যক।

প্রতিবছরই আজকের দিনে নীল পুজো পালন করা হয়। মন্দিরগুলিতে উপচে পড়ে মানুষের ভিড়। তবে এবারে করোনা ভাইরাস এর আতঙ্কের জন্য গোটা ভারতবর্ষ জুড়ে লকডাউন চলছে। আর মন্দিরের গর্ভগৃহ খোলা থাকলেও তা সাধারণের জন্য বন্ধ রয়েছে। তাই বাড়িতেই শিবলিঙ্গের পুজো করুন। সুস্থ থাকুন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন।

You might also like
Leave a Comment