সব খবর সবার আগে।

দাবদাহ গরমে এসি চালাবেন? ছড়িয়ে পড়বে না তো করোনা? জানুন সঠিক গাইডলাইন

করোনার জেরে ঘরবন্দি গোটা বিশ্ব। ভারতেও ৩রা মে পর্যন্ত চলবে লকডাউন। আস্তে আস্তে গরম বাড়ছে ভারতে। বেশিরভাগ বাড়িতে এসি চালানোও শুরু হয়ে গিয়েছে। এখানেই প্রমাদ গুনছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ ইতিমধ্যেই  বিভিন্ন গবেষণায় জানা গিয়েছে করোনা ভাইরাস বদ্ধ ঘরে ও ঠান্ডায় অতি সক্রিয়। আর চলতি মাসে ক্রমাগত বেড়েই চলেছে গরমের দাপট, আগামীদিনে যে তাপমাত্রা আরও বাড়বে তা বলাই বাহুল্য। তাহলে এসি চালাতে শুরু করে দিলে করোনা‌ কি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে, মানুষের মনে ঘুরছে এই প্রশ্ন।

তাহলে এবারের গরমটা কি এসি ছাড়াই কাটাতে হবে? উত্তরটা হল, না। কারণ, ইন্ডিয়ান সোসাইটি অফ হিটিং রেফ্রিজারেটিং অ্যান্ড এয়ার কন্ডিশনার ইঞ্জিনিয়ার্স কেন্দ্রীয় পূর্ত বিভাগকে জানিয়েছেন , সংক্রমণ রুখতে এসি-তে ঘরে বা অফিসে আর্দ্রতা যেন ৪০ থেকে ৭০ ডিগ্রির মধ্যে থাকে৷ এরপরেই কেন্দ্র থেকে নয়া অ্যাডভাইজারি দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রের দেওয়া এই অ্যাডভাইজারি অনুযায়ী  বাড়িতে ও অফিসে এসি চালালে, তার তাপমাত্রা যেন ২৪ থেকে ৩০ ডিগ্রির মধ্যে থাকে৷ ২৪ ডিগ্রির কমে এসি না চালানোই ভালো এই অতিমারীর আবহে৷অপরদিকে, এছাড়াও  পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, ‘বাড়িতে এসি চালালেও জানলা অল্প করে খুলে রাখুন। তা হলে ভিতরে ঠান্ডা হাওয়ার সার্কুলেশনের সঙ্গে বাইরের হাওয়াও কিছুটা ঢুকবে। ভিতরের হাওয়াও কিছুটা বেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ হবে। এই বায়ু চলাচল খুবই দরকার। আপেক্ষিক আর্দ্রতা যেন কখনও ৪০ শতাংশের নীচে না নামে।

এছাড়াও বন্ধ অফিস বা কোনো প্রতিষ্ঠানে গেলে সেই ঘর প্রথমেই ব্যাক্টেরিয়া, ফাঙ্গাস মুক্ত করতে হবে এতে সংক্রমণ এড়ানো সম্ভব হবে । তাই সেসব ঘরে  দরজা-জানলা খুলে ও ফ্যান-এসি চালিয়ে বায়ু চলাচল ঠিক করে নিতে হবে। তবেই বাইরের তাপমাত্রার সঙ্গে ভিতরের তাপমাত্রার একটা সামঞ্জস্য তৈরি হবে।

You might also like
Leave a Comment