সব খবর সবার আগে।

পুজোতে লাগুক মোহময়ী, এই ব্যায়াম করে ঝরিয়ে ফেলুন শরীরের বাড়তি মেদ!

পুজো আসতে বাকি মাত্র কয়েকটা দিন। করোনা ভুলে মানুষ এখন কেনাকাটাতে ব্যস্ত। পুজোয় সব সুরক্ষা বিধি মেনেই এক দুদিন হলেও বেরোবে বাঙালি, দোকানে ভিড় দেখে তো তাই মনে হচ্ছে। জামাকাপড় তো অনলাইন হোক বা অফলাইনে কিনে তো ফেলেছেন, কিন্তু লকডাউনে টানা ছয় মাস বাড়িতে থেকে যে অতিরিক্ত ওজন জমেছে শরীরে তাতে সেই জামাকাপড় ফিটিংস হবে কিনা সেই নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন সকলে।

আপনাদের জন্য আমরা দিলাম দুইটি ব্যায়ামের হদিশ এখন থেকে প্র্যাকটিস শুরু করলে পুজোর আগেই পেটের বাড়তি মেদ ঝরে যাবে।এর জন্য প্রতিদিন আপনাকে মাত্র কুড়ি মিনিট সময় দিতে হবে। এই ব্যায়াম দুটি হল ক্রাঞ্চ ও প্লাঙ্ক। পেটের পেশিতে চাপ বাড়িয়ে এই দুটি ব্যায়ামের মাধ্যমে পেশির স্টিফনেস কমানো হয় যাতে মেদ গলতে সুবিধা হয়।এই ব্যায়াম আপনি যদি রোজ করতে পারেন তাহলে আপনার ডাইজেশন থেকে বিএমআর রেট সবকিছুই ঠিকঠাক হবে।

কিন্তু কী উপায়ে এমন ব্যায়াম করবেন?

খুব সাবধানে এই ব্যায়াম করতে হবে কারণ এর পদ্ধতিতে ভুল হলে কিন্তু হিতে বিপরীত হয়ে যাবে।

কোন উপায়ে ক্রাঞ্চ বা প্লাঙ্ক করতে হবে?

ক্রাঞ্চ: মাটিতে পিঠ রেখে শুয়ে পড়ুন। এরপর হাঁটু ভাঁজ করে উঁচু করুন যাতে আপনার পায়ের পাতা মাটিতে গিয়ে ঠেকে। হাতদুটো মাথার পেছনে থাকবে। এবার পেটের উপর চাপ দিয়ে শোয়া অবস্থায় থেকে উঠে মাথাটা হাঁটুর দিকে দিকে নিয়ে যান। ধীরে ধীরে পাঁচ গুনুন। আবার আগের অবস্থায় ফিরে আসুন। একেকটি সেটে এটি ১৫ বার করে করবেন। প্রথমে এক সেট দিয়ে শুরু করে পরে সেটের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়ান।

প্লাঙ্ক: প্রথম দিকে কনুই পর্যন্ত মাটির সঙ্গে ঠেকিয়ে প্লাঙ্ক করুন। ছবিতে যে রকম ভাবে দেখতে পাচ্ছেন সেরকম ভাবেই প্লাঙ্ক করবেন। পরে হাতের পাতা ও পায়ের পাতা মাটিতে রেখে বাকি শরীরটা হাওয়ায় তুলে অভ্যাস করা শুরু করুন। পেট ও কোমরের কেন্দ্রস্থলের পেশীকে শক্তিশালী করে এই ব্যায়াম। প্রতিদিন দুই থেকে তিন মিনিট এই ব্যায়াম অভ্যাস করা উচিত এবং পরে এই সময়সীমা ধীরে ধীরে বাড়ানো উচিত।

তাহলে আর দেরি কেন? কাল থেকেই শুরু করে দিন এই ব্যায়াম আর পুজোকে স্বাগত জানান নিজের ছিপছিপে চেহারায়।

You might also like
Comments
Loading...
Share