বাংলাদেশ

শুরুতেই মহাবিপদ! পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পরদিনই বাইক দুর্ঘটনা সেতুতে, মৃত ২, বাইক চলাচল নিষিদ্ধ

উদ্বোধন হওয়ার পরদিনই পদ্মা সেতুতে ঘটে গেল বড়সড় বিপত্তি। বাইক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল দুই যুবকের। বাইক চালিয়ে সেতুর উপর নিয়ে যাওয়ার সময় ঘটে দুর্ঘটনা। এর জেরে আজ, সোমবার সকাল থেকেই সেতুতে বাইক চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

নিহতদের নাম আলমগির হোসেন, বয়স ২২ এবং বয়সি মহম্মদ ফজলু, বয়স ২১। দু’জনের বাড়িই দোহার থানা এলাকায়। জানা গিয়েছে, গতকাল, রবিবার রাত সাড়ে দশটা নাগাদ বাইকে চড়ে পদ্মা সেতু দিয়ে যাচ্ছিলেন দু’জনে। সেই সময় সেতুর ২৭ এবং ২৮ নম্বর পিলারের মাঝামাঝি জায়গায় ঘটে এক দুর্ঘটনা।

দুই যুবককেই তড়িঘড়ি উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। কিন্তু দু’জনকেই বাঁচানো সম্ভব হয়নি। হাসপাতালে নিয়ে গেলে আলমগির হোসেন এবং মহম্মদ ফজলুকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করেন বহু প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতুর। এই সেতুকে ‘স্বপ্নের উন্মোচন’ বলে আখ্যা দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ সরকারের তরফে। মোট ৩০ হাজার ১৯৪ কোটি টাকা খরচা হয়েছে এই পদ্মা সেতু তৈরিতে।  

এই সেতু তৈরি হতে সময় লেগেছে ৯০ মাস ২৭ দিন। প্রায় ১৪ হাজার দেশী-বিদেশী শ্রমিক, ইঞ্জিনিয়াররা দিনরাত খেটে কাজ করেছেন। পরামর্শকের মধ্যে ছিলেন প্রায় এক হাজার ২০০ দেশী ও দুই হাজার ৫০০ বিদেশি ইঞ্জিনিয়ার। শ্রম দিয়েছেন প্রায় ৭ হাজার ৫০০ দেশি শ্রমিকক, আড়াই হাজার বিদেশি শ্রমিক ও প্রায় ৩০০ দেশী-বিদেশী পরামর্শক।  

এই পদ্মা সেতুর ফলে রাজধানী ঢাকা ও অন্যান্য বড় শহরের সঙ্গে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমের মোট ২১টি জেলার সঙ্গে সড়কপথে যোগাযোগ আরও সাশ্রয় হবে। আগে সড়কপথে কলকাতা থেকে ঢাকা যেতে সময় লাগত ১৬ ঘণ্টা। তবে এই নতুন সেতুর ফলে ছ’ঘণ্টাতেই পৌঁছনো যাবে বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button