ব্যাবসা, বাণিজ্য ও অর্থনীতি

সরকারের থেকে সাহায্য নিয়েই শুরু করুন এই ব্যবসাগুলি, আয় করতে পারবেন লক্ষ টাকা

গত দু’বছর ধরে করোনার জেরে মানুষের আর্থিক পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। সাধারণ মানুষের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে বলা ভালো। টিকাকরণ মানুষের জীবনকে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক করে তুললেও, ফের চোখ রাঙাচ্ছে করোনা। এরই মধ্যে এসেছে ওমিক্রনের ধাক্কা।

চাকরির অবস্থা শোচনীয়। এর জেরে মানুষ এখন ঝুঁকেছে ব্যবসার দিকে। ক্ষুদ্র ব্যবসার জন্য সরকারের কাছ থেকে লোণ পাওয়া যায়। ব্যবসায় উৎসাহ জোগাতে Start Up India ও Make in India-র মতো পদক্ষেপ নিয়েছে কেন্দ্র। এর পাশাপাশি অর্থ সাহায্য করতে Pradhan Mantri MUDRA Yojana-ও চালু করা হয়েছে।

নতুন বছরে কৃষির উপর ভিত্তি করে এই ব্যবসাগুলি শুরু করা যেতে পারে-

সারের ব্যবসা

যারা ব্যবসা শুরু করার কথা ভাবছেন, তাঁরা যে কোনও জায়গায় সার বিতরণের ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এই জন্য আপনাকে বীজ, সার, ভার্মি-কম্পোস্ট ইত্যাদি বিক্রির লাইসেন্স নিতে হবে। পাশাপাশি কারা এই সার কিনতে পারেন সে সম্পর্কেও ধারণা করে রাখতে হবে। যাতে ব্যবসায় যথেষ্ট লাভ হয়।

সবজি চাষ

আলু, পালং শাক, পেঁয়াজ, ফুলকপি, টম্যাটো, বাঁধাকপি, শিম, এই ধরণের সবজির চাষ যে কোনও জায়গাতেই হয়। গোটা বিশ্বে সবজির বড় বাজার রয়েছে। তাই কেইউ যদি চান, তাহলে এই ধরণের সবজির চাষ করা যেতে পারে আর এই চাসে লাভের সম্ভাবনাও প্রবল।

মাটি বিশ্লেষণাগার

যে কোনও কৃষকেরই উচিত মাটি পরীক্ষা করে চাষের কাজ শুরু করা। সম্প্রতি এই কাজ বেশ জনপ্রিয় হয়েছে। কৃষিবিজ্ঞানের দিক থেকে ভেবে দেখলে এই ব্যবসা অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারে। এই ব্যবসায় মূল কাজ হল, মাটির পুষ্টির মাত্রা নিরীক্ষণ করা। যাতে কৃষকেরা সেই অনুপাতে সার দিয়ে মাটিকে কৃষিকাজের উপযুক্ত করে তুলতে পারে।

মাছ চাষ

বছরের যে কোনও সময় এই চাষ করে অর্থ উপার্জন করা যেতে পারে। বাণিজ্যিক মাছ চাশব করা বেশ লাভবান বিনিয়োগ। কোনও ব্যক্তি চাইলে বাড়ির পুকুরে না বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ করতে পারেন। এই ব্যবসা থেকে লক্ষ টাকা উপার্জন হতে পারে। এই একই পদ্ধতিতে রঙিন মাছ ও জিয়ল মাছও চাষ করা যেতে পারে।

ছাগল পালন

যদি পর্যাপ্ত জমি থাকে, তবে কোনও ব্যক্তি ছাগল পালন করেও মোটা অর্থ উপার্জন করতে পারে। ছাগলের চাহিদা দেশে ও বিদেশে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে। অল্প অর্থ বিনিয়োগ করেই এই মোটা টাকা রোজগার করার রাস্তা খোলা যেতে পারে।

পশুখাদ্য উৎপাদন

এই ব্যবসা ছোটো আকারেই শুরু করা যেতে পারে। কৃষিপ্রধান এলাকায় এই চাষ বেশ লাভজনক। কারণ সেখানে পশু থাকবে। আর সেক্ষেত্রে পশুখাদ্য প্রয়োজন। এই ব্যবসা থেকেও বেশ ভালো অঙ্কের টাকা উপার্জন করা যেতে পারে।

Related Articles

Back to top button