ভাইরাল

পুজোয় ঘুগনি-ঝালমুড়ি বিক্রি করছেন খোদ মমতা, মুহূর্তে ভাইরাল ভিডিও, কাণ্ডকারখানা দেখে হেসেই খুন নেটিজেনরা

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে এমন কিছু কিছু ভিডিও আমাদের সামনে আসে, যা কখনও আমাদের খুব আনন্দ দেয় তো কখনও আবার কিছু ভিডিও দেখে আমরা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ি। কখনও কোনও ভিডিও দেখে আমরা আবার হেসে লুটোপুটি খাই। এবার তেমনই একটি ভিডিও ভাইরাল হল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও শেয়ার করেন যা দেখে সকলে প্রথমে কিছুটা হতবাকই হয়েছেন বলা যায়। এই ভিডিওতে দেখা যায় যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চা, ঘুগনি, ঝালমুড়ি ন বিক্রি করছেন দুর্গাপুজোর মণ্ডপের বাইরে। এই ভিডিও দেখে সকলেই একটু চমকে উঠেছিলেন বৈ কী!

তবে একটু ভালোভাবে লক্ষ্য করলে বোঝা যাবে যে ওই বিক্রয়কারী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন, বরং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখোশ পরা এক ব্যক্তি। এই ভিডিওকে ঘিরে একের পর এক বিতর্কেরও সৃষ্টি হয়েছে। এই ভিডিওতে শোনা যাচ্ছে যে ব্যাকগ্রাউন্ডে একটি ঘোষণা হচ্ছে। তাতে মানুষজনকে আহ্বান জানানো হচ্ছে চা, ঝালমুড়ি, ঘুগনি খাওয়ার জন্য।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই কর্মসংস্থানের দিশা দেখাতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, “১০০০ টাকা সংগ্রহ করে একটা কেটলি এবং কয়েকটা মাটির ভাড় নিন। প্রথম সপ্তাহে কয়েকটা বিস্কুট নিন। তারপর মাকে ঘুগনি তৈরি করতে বলুন। তার পরের সপ্তাহে তেলে ভাজা। একটা টুল আর টেবিল নিয়ে বসে যান। পুজোয় বাংলায় এত মানুষ ঘুরতে আসে, দরকার পড়লে ঝাল মুড়ির কৌটো নিয়ে নিন। সঙ্গে বাদাম আর ছোলা। যা বিক্রি হবে, কুলোতে পারবেন না”।

মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্য নিয়ে তুমুল কটাক্ষ শানিয়েছিলেন বিরোধীরা। এই সূত্র ধরেই এই অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যক্তি মুখ্যমন্ত্রীর মুখোশ পরে এমন কাণ্ডকারখানা ঘটিয়েছেন। মুহূর্তে ভাইরাল হয়েছে এই ভিডিও। নেটিজেনদের হাসির খোরাক জুগিয়েছে এটি। তবে এই ভিডিওকে কেন্দ্র করে যাতে কোনও রাজনৈতিক ঘটনা না ঘটে, এখন সেটাই কাম্য।

Related Articles

Back to top button