ভাইরাল

মাসিক মাইনে পঞ্চাশ হাজার! এদিকে বানান লিখতে অক্ষম শিক্ষিকা, ভাইরাল ভিডিও

সমাজের শিক্ষার অন্যতম ধারক ও বাহক হলেন শিক্ষক। ছোটবেলা থেকেই মনে করা হয় বাবা মায়ের পর প্রথম গুরুজন শিক্ষক।তাদের হাত ধরেই শিশু শিক্ষার সূচনা ঘটে।ছাত্র ছাত্রীরা শিক্ষার মাধ্যমে সমাজের মাথা উচু রাখতে সচেষ্ট হয়।

পাশাপাশি শিক্ষক শিক্ষিকাদের ওপরে প্রত্যেক বাবা মায়ের ভরসা থাকে। তাদের শিক্ষা দান ছাত্র ছাত্রীদের সাফল্যের চাবিকাঠি।তাদের আশা শিক্ষকের স্পর্শে মানুষের মতো মানুষ হয় তারা।

কিন্তু সমাজের বুকে এমন কিছু ঘটনা ঘটে যায় যা নিঃসন্দেহে সংশয়ের অবকাশ সৃষ্টি করেছে।অনেক ক্ষেত্রেই এমন ঘটনা ঘটে যেখানে শিক্ষক নিজেই ঠিক মত পড়াশোনা জানেন না।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এরকম একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে শিক্ষিকার নিজস্ব কোন শিক্ষাগত জ্ঞানই নেই অথচ তিনি শিক্ষা প্রদান করছেন শিশুদের। বিহার রাজ্যের একটি স্কুলে এমনই ঘটনা ঘটেছে , যাতে করে আরো একবার শিক্ষার মান যে নিম্নমুখী প্রকাশ্যে এসেছে। মাসের শেষে মোটা অংকের অর্থ মাইনে পেলেও বানান জানেন না তিনি।

ভাইরাল ভিডিও তে দেখা যাচ্ছে এক মহিলা শিক্ষিকা স্কুলের মধ্যে ক্লাস রুমের বাইরে খাতা পেন নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। জনৈক ব্যক্তির হাতে মাইক্রোফোন নিয়ে ওই শিক্ষিকাকে সপ্তাহের সাতটি বারের নাম আর বানান জিজ্ঞাসা করছেন। আর সেই বানান বলতে গিয়ে একেবারে তথৈবচ অবস্থা শিক্ষিকার।

আশ্চর্যজনক ঘটনা হলো এটাই তিনি বানান বলতে না পারলেও তার মধ্যে লজ্জার কোনো লক্ষণ প্রকাশ পায়নি।
পোশাকে এত জাক জমোক এদিকে সামান্য বানান জানেন না তিনি।

এখানেই শেষ না,স্কুলের প্রধান শিক্ষিকাকে, বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর পরিবর্তে প্রধানমন্ত্রীর নাম বলতে বললে তিনি লালু প্রসাদ যাদবের নাম করেন।কিভাবে চাকরি পেলেন এই শিক্ষিকারা সেই নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।

ভাইরাল ভিডিও বারবার প্রমাণ করে দিয়েছে শিক্ষার মান কতটা নিম্নমুখী পাশাপাশি অভিভাবকরাও চিন্তিত এরকম শিক্ষিকার কাছে তাদের সন্তানরা কেমন শিক্ষা লাভ করছে।

Related Articles

Back to top button