ভাইরাল

বিশ্বের সবচেয়ে দামী আম পাহারায় ৪ নিরাপত্তারক্ষী, ৬ শিকারি কুকুর, দাম শুনলে চোখ কপালে উঠবে

চাষের ক্ষেতে ফসল যাতে কেউ নষ্ট না করে বা ফলের বাগানে ফল যাতে চুরি না হয়, সেই জন্য অনেক সময় অনেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। কিন্তু আম পাহারা দেওয়ার জন্য ৬টি শিকারি কুকুর ও ৪ জন নিরাপত্তারক্ষী কে রাখে? কিন্তু এমনটা হচ্ছে, আমাদের দেশেই হচ্ছে।

কিছু বছর আগে জব্বলপুরের সংকল্প পরিহার নামের এক কৃষক দক্ষিণ ভারতের চেন্নাইয়ে এক ব্যক্তির থেকে একটি আমের চারা কেনেন ২৫০০ টাকা দিয়ে। সেই আমের চারাকে আর পাঁচটা গাছের মতোই লালন পালন করে বড় করতে থাকেন পরিহার দম্পতি। এই আমের নাম তাদের জানা ছিল না বলে, সংকল্প পরিহার এই আমের নাম রাখেন দামিনী, তাঁর মায়ের নামে।

প্রথমের দিকে সব ঠিকই ছিল, কিন্তু গাছ বড় হতেই সন্দেহ জাগে দম্পতির মনে। এই গাছের আম অন্যান্য আমের থেকে একেবারে আলাদা। দেখতে টকটকে লাল। এরপর খোঁজ নেওয়ার পর ওই দম্পতি জানতে পারেন এটি একটি জাপানি আম, নাম মিয়াজাকি।

এই গাছ সংকল্প পরিহারের বাগানে দুটি রয়েছে। তিনি জানতে পারেন, এটি বিশ্বের দ্বিতীয় মুল্যবান আম। এই এক কিলো আমের দাম ২ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা। এই আম দেখতে টকটকে লাল, তাই একে সূর্যের ডিমও বলা হয়।

কিন্তু কেন এত দাম?

সংকল্প পরিহারের কথায় জাপানে অনেক সাবধানে এই আমের চাষ করতে হয়। সেখানে গ্রিন হাউজ তৈরি করে এই আম চাষ করা হয়। কারণ, সেখানকার আবহাওয়া অন্য। কিন্তু ভারতে এই আম চাষ করার জন্য আলাদা কিছু করতে হয় না। ভারতের ঠাণ্ডা-জলীয় আবহাওয়াতেই এই আম ভালো হয়। জাপানে অনেক ব্যবস্থা করতে হয় বলে এই আমের দাম এত বেশি।

তিনি এও জানান যে এই আম কেনার জন্য তাঁর সঙ্গে একাধিক ব্যবসায়ী যোগাযোগ করেছেন। অনেকেই এই গাছের চারা ও আম কেনার জন্য অনেক টাকাও দিতে রাজী।

পরিহার পরিবারের এই আমের গাছের খবর প্রকাশ্যে আসতেই তাঁর বাগানে চোরের উপদ্রব বাড়ে। এমনকি বেশকিছু আম চুরিও হয়ে যায়। এই কারণেই এই আম পাহারা দেওয়ার জন্য ৬টি শিকারি কুকুর ও ৪ জন নিরাপত্তারক্ষী রেখেছেন সংকল্প পরিহার। এই নিরাপত্তা পেরিয়ে যাতে কেউ আম চুরি করতে না পারে, তাই এই ব্যবস্থা।

Related Articles

Back to top button