সব খবর সবার আগে।

পা নেই, মেয়েকে তাই রাস্তায় ফেলে দিয়ে যান মা-বাবা, আজ সেই মেয়েরই মাসিক আয় ৫০ লক্ষ টাকা

জন্ম থেকেই তাঁর দুটি পা ছিল না। এমন মেয়েকে একেবারেই মেনে নিতে পারেননি তাঁর মা-বাবা। এই কারণে সপ্তাহখানেকের মেয়েকে বৌদ্ধ মন্দিরের সামনের রাস্তায় ফেলে দিয়ে পালান তাঁর মা-বাবা।

সেই থেকেই কার্যত অনাথ কানিয়া সেসার। ছোট্ট সেই শিশুর ঠিকানা হয় অনাথ আশ্রম। তবে ভাগ্য সদয় ছিল কানিয়ার। এক দম্পতি থাইল্যান্ডের অনাথ আশ্রম থেকে দত্তক নেয় কানিয়াকে।

কানিয়াকে দত্তক নেওয়ার পর তাঁকে নিয়ে আমেরিকায় চলে যান তারা। পোর্টল্যান্ডে বড় হতে থাকে কানিয়া। সেখানেই তিনি ধীরে ধীরে নিজের শারীরিক অক্ষমতাকে দূরে সরিয়ে জীবনটাকে নতুন করে বাঁচার আশার আলো দেখে কানিয়া।

কোনওদিন হুইল চেয়ারকে নিজের সঙ্গী হিসেবে বেছে নেননি তিনি। বরাবরই তাঁর পছন্দ স্কেট বোর্ড। মা-বাবার দ্বারা উপেক্ষিত হওয়া সেই মেয়ের মাসিক আয় এখন ৫০ লক্ষ টাকা। নানান নামীদামী পোশাক কোম্পানির মডেল হিসেবে তিনি এখন বেশ জনপ্রিয়। এক সাক্ষাৎকারে তিনি একবার বলেন, “নো লেগস, নো লিমিটস’, অর্থাৎ তাঁর পা নেই, তাই কোনও বাধা নেই তাঁর।

আরও পড়ুন- অভাব-অনটন, হাতে টাকা নেই, একঘরে দিন কাটিয়ে তবুও মেয়ের ন্যায় বিচারের জন্য লড়ছেন প্রত্যুষার মা-বাবা

সেই কানিয়া সেসার এখন স্বপ্ন দেখেন যে তিনি কোনও একদিন প্যারা অলিম্পিকে অংশগ্রহণ করবেন। তাঁর কথায়, “আমি ছোটবেলা থেকেই অ্যাথলেটিক্সের প্রতি খুব আগ্রহী। পরে ধীরে ধীরে ফটোশুট ও মডেলিং শুরু করি”। জীবনের নানান সমস্যা কাটিয়ে আজ আলোর মুখ দেখেছেন কানিয়া। তাঁর ইচ্ছাশক্তি ও হেরে না যাওয়ার ক্ষমতাই যে আজ তাঁকে এই জায়গা এনে দিয়েছে, তা বলাই বাহুল্য।

You might also like
Comments
Loading...