ভাইরাল

কথাবার্তা, চালচলনে একেবারে ছাপোষা গ্রামীণ মহিলা, পরে জানা গেল তিনি আসলে এক IAS অফিসার

এমন অনেক মানুষই রয়েছেন যারা সাফল্য পাওয়ার পর নিজের ভিতকেই ভুলে যান। নিজের কষ্টের দিনগুলো, সংঘর্ষের দিনগুলোর কথা মনে রাখতে চান না অনেকেই। সাফল্যের শীর্ষে পৌঁছে নিজের ঐতিহ্য, সংস্কারকে অগ্রাহ্য করেন অনেকেই। এমন অনেক কম মানুষই রয়েছেন, যারা সাফল্যের সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠে গেলেও তাদের পা মাটিতেই থাকে। এমনই এক উদাহরণ হলেন মনিকা যাদব।

রাজস্থানের শিকার জেলার শ্রীমাধোপুর পঞ্চায়েত লিসদিয়া গ্রামের বাসিন্দা মনিকা। তবে এছাড়াও তাঁর অন্য এক পরিচয় হল, তিনি একজইন আইএএস অফিসার। ২০১৪ সালে আইএএস পরীক্ষায় প্রথম চেষ্টাতেই ৪০২ র‍্যাঙ্ক করেন তিনি। এরপর হন আইএএস অফিসার।

তবে এমন উচ্চস্তরের এক অফিসার হওয়া সত্ত্বেও নিজের স্বত্বাকে কোনওদিনও ভোলেন নি তিনি। ধরে রেখেছেন নিজের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি। তাঁর বাবা হরফুল সিং যাদবও একজন সিনিয়র আইআরএস অফিসার। নিজের বাবার পদাঙ্ক অনুসরণ করেই আইএএস অফিসার হন মনিকা। বর্তমানে তিনি তিরওয়া অঞ্চলে ডিএসপি পদে কর্মরত।

আইএএস অফিসার সুশীল যাদবকে বিয়ে করেন মনিকা। সুশীল বর্তমানে রাজস্থানে এসডিএম হিসেবে কাজ করছেন। সম্প্রতি, মনিকার বেশ কিছু ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। তাতে তাঁকে সম্পূর্ণ রাজস্থানের ঐতিহ্যবাহী পোশাকে দেখা গিয়েছে। তাঁর পরনে লাল শাড়ি, কপালে টিপ। এক নবজাত শিশুকে কোলে নিয়ে বসে রয়েছেন তিনি। ২০২০ সালে এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেন মনিকা।

নিজের কাজের প্রতি খুবই কর্তব্যপরায়ণ মনিকা। সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলে তাদের সমস্যার কথা শুনে তা সমাধান করার চেষ্টা করেন তিনি। তাঁর ভাইরাল হওয়া ছবি নেটিজেনদের মন জয় করেছে। উচ্চস্তরের অফিসার হয়েও যে তিনি নিজের শিকড়কে ভুলে যান  নি, এর জন্য বাহবাও কুড়িয়েছেন মনিকা।

Related Articles

Back to top button