সব খবর সবার আগে।

সত্য ও নিরপেক্ষ খবরের নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করায় নিজেদের দেশে বিবিসি-কে নিষিদ্ধ করল চীন

এক সপ্তাহ আগেই চীনা সংবাদমাধ্যম সিজিটিএন-কে নিষিদ্ধ করেছে ব্রিটিশ মিডিয়া নিয়ন্ত্রক। এরপরই প্রতিহিংসা পরায়ণের জন্য নিজেদের দেশে বিবিসি-কে নিষিদ্ধ করল চীন।

বৃহস্পতিবার পেশ করা একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, চীনের মিডিয়া নিয়ন্ত্রক ন্যাশানাল রেডিও অ্যান্ড টেলিভিশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন একটি বিবৃতি জারি করে বলেছে যে তারা বিবিসি-কে নিষিদ্ধ করছে। কারণস্বরূপ বলা হয়েছে যে এই সংবাদমাধ্যম চীনের সত্য ও নিরপেক্ষ খবরের নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করেছে।

এর আগেও চীনা আধিকারিকের তরফে বিবিসি-কে নিষিদ্ধ করার হুমকি দেওয়া হয়। ব্রিটিশ নিয়ন্ত্রক চীনা সংবাদমাধ্যম সিজিটিএন-এর লাইসেন্স রদ করার করে। তাদের দাবী, এই সংবাদমাধ্যমের এডিটোরিয়ালের উপর চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সম্পূর্ণ প্রভাব রয়েছে এরপরই চীনা আধিকারিকের তরফে বামপন্থি সংবাদমাধ্যম বিবিসি-কে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এই বিষয়ে রেডিও অ্যান্ড টেলিভিশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের তরফে বলা হয়, “এই চ্যানেলটি চীনের প্রয়োজনীয় খবর পেশ করতে ব্যর্থ”। তবে এটা এখনও পর্যন্ত পরিষ্কার নয় যে, বিবিসিকে নিষিদ্ধ করা কীভাবে চীনে কোনওরকম প্রভাব ফেলবে। কারণ, চীনের প্রধান অঞ্চল বা চীনের বাড়িতে এই নেটওয়ার্কের অনুমতি নেই। এই নেটওয়ার্ক রয়েছে শুধুমাত্র কিছু হোটেল, ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে।

চীনে বিবিসিকে নিষিদ্ধ করে দেওয়ার ঘটনার চূড়ান্ত নিন্দা করা হয়েছে আমেরিকা ও ব্রিটেনের পক্ষ থেকে।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...