সব খবর সবার আগে।

চীনে জমিয়ে হচ্ছে ফেস্টিভাল থেকে কনসার্ট! করোনা স্রষ্টা এই দেশে মানা হচ্ছে না কোন বিধি-নিষেধ

ভাড় মে যায় দুনিয়া, হামারা ক্যায়া! নিজেদের যেন ঠিক এই মন্ত্রে দীক্ষিত করেছে চীন (China)। সেখানে এখন চলছে দেদার পার্টি, ফেস্টিভাল, কনসার্ট? করোনা; সে আবার কী? ৯০% শতাংশ মানুষের মুখেই কোন মাস্ক (Mask) নেই, চলছে বিশাল জমায়েত, হৈ-হুল্লোড়। যে ছবি দেখে আঁতকে উঠেছে গোটা বিশ্ব কারণ করোনার (CoronaVirus) জন্মদাতা চীন স্বয়ং।

দীর্ঘ আট মাস হতে চলল করোনাভাইরাস (CoronaVirus) এর জেরে ত্রস্ত গোটা বিশ্ব। কীভাবে এই মারণ ভাইরাসের হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে তা নিয়ে দিনরাত এক করে গবেষণা চলছে সব দেশে। চীনের উহান (Wuhan) প্রদেশ থেকেই ছড়াতে শুরু করেছিল এই মারণ ভাইরাস। ইতিমধ্যেই লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন করোনার জেরে। অর্থনৈতিক মন্দায় ভেঙে পড়েছে গোটা বিশ্বের অর্থনীতি। এর মধ্যেই ভয়ঙ্কর অভিযোগ উঠেছে যে চীন (CoronaVirus) করোনা সংক্রান্ত অনেক জরুরী তথ্য লুকিয়ে গিয়েছে গোটা বিশ্বের থেকে। আমেরিকা (America) অভিযোগ করেছিল, উহানের (Wuhan) বায়ো ল্যাব থেকে ইচ্ছাকৃতভাবে ছড়ানো হয়েছিল এই ভাইরাস।

যদিও লাল ফৌজের দেশ সেসব একেবারেই অস্বীকার করেছে। সেই দেশে এখন চলছে প্রবল মজা। সামাজিক দূরত্ব বিধি না মেনেই দেদার পার্টিতে (Parties) মজেছেন চীনা মানুষরা। হাজার হাজার মানুষ কনসার্ট (Concerts) বা ফেস্টিভ্যালে (Festival) মেতে উঠছেন।

চীনের রাজধানী বেজিংয়ের (Beijing) লাগোয়া হেবেই-এর জনসংখ্যা প্রায় সাড়ে সাত কোটি। গত সপ্তাহেই সেখানে একট মিউজিকাল কনসার্ট আয়োজন করা হয়েছিল। প্রায় ৪০০০ জন মানুষের জমায়েতে সোশ্যাল ডিসটেন্সিং কী তা সম্পূর্ণ ভুলে যাওয়া হয়েছিল ওই কয়েক ঘণ্টার জন্য।

চীনের পূর্ব দিকে শোডেং-এর কিংদা্ও শহরের জনসংখ্যা ৯১ লাখ। এখানে আবার সম্প্রতি হয়েছে বিয়ার ফেস্টিভেল। সেখানে জমায়েত হয় তিন হাজার জনের। কারোর মুখেই বলতে গেলে মাস্ক ছিল না। আয়োজকরা জানিয়েছেন, প্রবেশ ছিল অবাধ। মাস্ক পরে আসার কোনও বাধ্যবাধকতা ছিল না।

চীনাদের দাবি যে, অনেক হয়েছে নিয়ম মানা। আর তারা পারছেন না, তাই এবার পুরনো ছন্দেই তারা নিজেদের জীবন লিখবেন তাতে প্রাণ যায় যাক না!

You might also like
Comments
Loading...
Share