আন্তর্জাতিক

বিশ্বজুড়ে ফের ছড়াচ্ছে করোনা আতঙ্ক! দক্ষিণ চীন থেকেই ছড়িয়েছে মারণ ভাইরাস, সত্য প্রকাশ্যে আনলেন ‘হু’ বিশেষজ্ঞ

বিশ্বজুড়ে প্রায় সবাই জানেন মহামারীর আকার ধারণ করা করোনাভাইরাস চীন থেকেই ছড়িয়েছে। তবে এই অভিযোগ কখনই মেনে নেয়নি চীন।

সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞরা চীনের উহান প্রদেশের তিনটি গবেষণাগার ঘুরে জানিয়েছেন যে, সেখান থেকে নাকি মারণ করোনা ছড়ায়নি। তবে ওই বিশেষজ্ঞ দলের একজন জানাচ্ছেন, ল্যাবরেটরি তত্ত্বকে উড়িয়ে দিলেও চীনে বন্যপ্রাণী নিয়ে যে ব্যবসা চলে সেখান থেকে ওই ভাইরাস ছড়াতেই পারে।

আরও পড়ুন –আমেরিকা-রাশিয়ার খুনোখুনি! পুতিনকে খুনি বলে দাগলেন বাইডেন, পেলেন পাল্টা জবাব

কী জানিয়েছেন ওই বিশষজ্ঞ? পিটার দাসজ্যাক নামের ওই বিশেষজ্ঞের কথায়, দক্ষিণ চীনের হুনান সিফুড হোলসেল মার্কেটে যেখানে প্রথম করোনার সংক্রমিত হয়, সেই চত্বর থেকেই করোনা ছড়াতে পারে। শীঘ্রই আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে চীনের রিপোর্ট প্রকাশ করবে। দাসজ্যাক আরও জানান, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে চীন বন্যপ্রাণী নিয়ে ব্যবসা বন্ধ করে দেয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞ দলের প্রাথমিক ধারণা, দক্ষিণ চীন থেকেই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রাপ্ত তথ্য বলে ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসের দু’মাস আগে থেকেই সাধারণ মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। ক্যালিফোর্নিয়া সান দিয়াগো বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এই গবেষণা চালিয়েছেন। গবেষণা বলছে, শুরু থেকে তিনমাসে সার্স-কোভ-টুয়ের মিউটেশন হয়েছে।

চীনের উহান প্রদেশ থেকে ছড়িয়ে পড়ার পরে অতিমারীর আকার নিয়েছে করোনা ভাইরাস। প্রথম থেকেই নানা জল্পনা শোনা গিয়েছে মারণ ভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে। প্রাক্তন মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প-সহ অনেকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছিলেন বেজিংয়ের দিকে। প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তো এই ভাইরাসকে চীনা ভাইরাস বলেও দেগে বসে ছিলেন!

এই ভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে উঠেছিল বহু প্রশ্ন। উহানের মাছ-মাংসের বাজার থেকেই সংক্রমণের শুরু? না কা উহানের ল্যাবরেটরিতে কৃত্রিম ভাবে তৈরি করা হয়েছে এই ভাইরাস! যদিও বরাবর সমস্ত অভিযোগ নাকচ করে এসেছে জিংপিং প্রশাসন। যাঁরাই এই ভাইরাস নিয়ে বেশি চর্চা করতে গেছে তাদেরকে রোষানলে পড়তে হয়েছে চীন সরকারের। পাল্টা ইউরোপ থেকে করোনা ছড়িয়েছে বলেও দাবি করেছিল কমিউনিস্ট দেশটি। তবে এবার খোদ চীনের দিকে আঙুল তুলছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞই! কি বলবে চীন?

Related Articles

Back to top button