সব খবর সবার আগে।

পুড়ে ছাই ছয় লক্ষ স্কোয়ারফিটের অ্যামাজনের গুদামঘর

এমনিতেই গোটা বিশ্ব এখন করোনার জেরে বিপর্যস্ত। তার ওপরে একের পর এক প্রাকৃতিক বিপর্যয় এমনিতেই মানুষকে বিপদে ফেলছে। এবার লস এঞ্জেলেসের রেডল্যান্ডসে একটি অ্যামাজনের গুদামঘরে আগুন লেগে ছাই হল কয়েক কোটি টাকার জিনিসপত্র।

শুক্রবার সকালে স্থানীয় সময় ৫টা ২৫ মিনিটে স্থানীয় বাসিন্দারা এই গুদামঘর থেকে জোরে বিস্ফোরণের আওয়াজ শোনেন। তারা বাইরে বেরিয়ে দেখেন, গুদামঘর থেকে আগুনের লেলিহান শিখা বেরোচ্ছে। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, সেইসময় ৪০ জন কর্মচারী কাজ করছিলেন এই অ্যামাজনের গুদামঘরে। দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ায় অ্যামাজন কোম্পানির যে জিনিসপত্র ডেলিভারি হয় তা এখান থেকেই প্যাকেজিং করা হত। এই ৪০ জন কর্মী গুদামঘর থেকে কোন ক্ষতি ছাড়া বাইরে বেরোতে সক্ষম হয়েছেন বলেও জানা গিয়েছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় বিশাল দমকল ও পুলিশ বাহিনী। বেলা ১১টার মধ্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে দমকলবাহিনী। এখনও পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর নেই।
দশটি ফ্রি-ওয়ে আংশিক অংশ সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এই ফ্রি-ওয়ে থেকে ধোঁয়া এবং আগুনের শিখা বেরোতে দেখে রীতিমত আতঙ্কে ছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

কিভাবে আগুন লাগলো তা এখন খতিয়ে দেখছে স্থানীয় পুলিশ বাহিনী। যদিও প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে জর্জ ফ্লয়েডের হত্যা ঘটনার প্রতিবাদকারীদের সঙ্গে এই অগ্নিকাণ্ডের কোন সম্পর্ক নেই।

অ্যামাজনের মুখপাত্র লিজা লেভানডস্কি জানিয়েছেন, “আমরা খুশি যে আমাদের প্রত্যেক কর্মচারী সুরক্ষিত রয়েছেন। স্থানীয় দমকল কর্মী ও যারা ঘটনাটা দেখে প্রথমে উদ্ধার কাজে এগিয়ে এসেছিলেন তাদেরকে আমরা ধন্যবাদ জানাচ্ছি।”

Leave a Comment