সব খবর সবার আগে।

পরেরবার লক্ষ্যভেদ হবেই! মালালা ইউসুফজাইকে ফের খুনের হুমকি, ইমরান সরকারকে কাঠগড়ায় তুললেন নোবেলজয়ী

স্কুল থেকে ফেরার পথে ১৫ বছর বয়সী মেয়েটার মাথা লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছিল সন্ত্রাসবাদী। মুখোশধারী আততায়ীর গুলি তাঁর বাঁ ভুরু ঘেঁষে কাঁধে লাগে। সেই হামলার ঘটনায় সমালোচনার ঝড় উঠেছিল গোটা বিশ্বে। লন্ডনে দীর্ঘ চিকিৎসার পর সুস্থ হন মালালা।

সন্ত্রাসবাদীদের চোখরাঙানিকে তুচ্ছ করে ফের ফেরেন সমাজের মূল স্রোতে। পুরস্কৃত হন নোবেল সম্মানে।

৯ বছর আগের সেই স্মৃতি ফের উস্কোচ্ছে। সেদিনের সাধারণ স্কুল ছাত্রী আজ বিশ্বের অন্যতম ক্ষমতাশালী নারী। কিন্তু এত বছরেও আততায়ীর মানসিকতায় কোনও বদল হয়নি। আবারও মালালাকে টুইট করে খুনের হুমকি দিয়েছে সে। সেই হুমকির জবাবে মুখ খুললেন মালালাও। কাঠগড়ায় তুললেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে।

সরাসরি টুইটারে হুমকি দিয়ে ‘তহরিক-ই-তালিবান পাকিস্তান’-এর প্রাক্তন মুখপাত্র এহসান জানিয়েছে, “পরের বার আর কোনও ভুল হবে না। লক্ষ্যভেদ হবেই।” অর্থাৎ আবারও মালালাকে গুলি করার সুযোগ পেলে সে প্রাণ নিয়েই ছাড়বে। এহেন ভয়ংকর হুমকির পরে তাঁর অ্যাকাউন্ট চিরতরে বন্ধ করে দিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ।

ওই টুইটটি শেয়ার করেই মালালা কার্যত কাঠগড়ায় তুললেন পাক প্রধানমন্ত্রী ও পাক সেনাকে। ঠিক কী লিখেছেন মালালা? টুইটারে তিনি লিখেছেন, “তহরিক-ই-তালিবান পাকিস্তানের প্রাক্তন মুখপাত্র আমারও আরও অনেক নিরীহ মানুষের উপরে হামলার দায় স্বীকার করেছে। এবার সে সোশ্যাল মিডিয়ায় হুমকিও দিতে শুরু করেছে। ও কী করে পালাল?” এরপরই প্রশ্ন তুলে সেই টুইটে তিনি ট্যাগ করেন পাক সেনা ও পাক মসনদে বসে থাকা ইমরান খানকে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের জানুয়ারি মাসে পাকিস্তানের জেল থেকে পালিয়ে যায় এহসান। সেই সময় বিরোধীরা এই ইস্যু নিয়ে প্রতিবাদের ঝড় তোলে। পাক প্রধানমন্ত্রীর ‘নিপাট অপদার্থতা’র কারণেই এহসান পালিয়েছে বলে অভিযোগ করে তারা। পরে এহসান একটি অডিও বার্তা পোস্ট করে নিজের জেল থেকে পালানোর কথা ঘোষণা করে।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
Comments
Loading...