সব খবর সবার আগে।

নজর এড়িয়ে সন্ত্রাসবাদী কাজকর্মে আর মদত নয় ইসলামাবাদের! কোয়াড বৈঠকে পাকিস্তানের উপর কড়া নজরদারি রাখার সিদ্ধান্ত মোদী-বাইডেনদের

ভার্চুয়াল বৈঠকে কথাবার্তা হলেও, এবার প্রথমবার মুখোমুখি বৈঠকে বসল কোয়াড অন্তর্ভুক্ত চারটি দেশ। আফগানিস্তান তালিবানদের হাতে যাওয়ার পর থেকেই চিন্তায় রয়েছেন সকলে। ফের আরেকবার নতুন করে জাঁকিয়ে বসেছে তালিবান। তাই নিয়ে বেশি মাথাব্যথা রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারতের। তাই সম্মেলনে আফগানিস্তান ইস্যু কথা হয়েছে।

সূত্র বলছে, শুক্রবার এই বৈঠকে চার দেশের রাষ্ট্রনেতা সহমত হয়েছেন যে, সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে মদত দেওয়ার কাজ করে থাকেন পাকিস্তান। তাই পাকিস্তানের দিকে বেশি করে নজর দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চারটি দেশ। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আমেরিকা, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের প্রতিনিধিরা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী যোশিহিদে সুগা ছিলেন এই বৈঠকে।

বিদেশ মন্ত্রকের সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, আফগানিস্তানের সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের পিছনে যে পাকিস্তানের হাত রয়েছে, তাই মেনে নিয়ে এগোচ্ছে অন্যান্য দেশ। এমনকি পাকিস্তানের ওপর কড়া নজর রাখার বার্তা দিয়েছেন রাষ্ট্রনেতারা। শুক্রবার দিন হোয়াইট হাউসে বাইডেনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী। পরে সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন তাঁরা। সেই বৈঠকে আফগানিস্তানে তালিবানি শাসন নিয়ে নিজের উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। আফগানিস্তান তালিবানি দখলে আসার পর থেকেই উদ্বেগে দিন কাটছে মোদীর।

এদিন বিশেষ সচিব হর্ষবর্ধন শ্রীংলা জানালেন, আফগানিস্তান তালিবানের দখলে যাওয়ার পেছনে পাকিস্তানের ভূমিকা রয়েছে। সেই বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে দেখার কথা বলছে সব দেশ। সন্ত্রাস ইস্যু নিয়ে পাকিস্তানের উপর কড়া নজর রাখার কথা বলা হয়েছে এই মুহূর্তে। বিদেশ সচিব জানান, এবার থেকে পাকিস্তানের ওপর বেশি করে নজর রাখবে কোয়াড অন্তর্ভুক্ত দেশগুলি। যাতে কোনো সন্ত্রাসবাদী কাজকর্ম না হয় ইসলামাবাদ থেকে। শুধু প্রতিবেশী দেশের ক্ষেত্রে নয়, অন্যান্য দেশের ক্ষেত্রেও যাতে সেই প্রভাব পড়তে না পারে সেদিকেও রাখা হবে নজর।

আফগানিস্তানের আশরাফ ঘানির সরকার ছিল ভারতের অন্যতম ভরসা। ভারতের একের পর এক প্রজেক্টে গত কয়েক বছরে টাকা ঢেলেছে আফগানিস্তান। কিন্তু তালিবানি শাসনে তা আর সম্ভব নয়। ১১ সেপ্টেম্বর আমেরিকার টুইন টাওয়ার হামলার সময় পাকিস্তানের সঙ্গে আল-কায়দাদের আঁতাতের কথা সবারই জানা। এবার তালিবানদের নতুন ক্ষমতায় আসার পর, ফের তাদের আঙুলে নাচাতে চাইছে পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। তবে এদিন কোয়াড অন্তর্ভুক্ত চারটি দেশের প্রতিনিধিরা, এই সমস্ত বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন এবং পাকিস্তানের প্রতি আরও বেশি সচেতন হওয়ার কথা জানিয়েছেন।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...