সব খবর সবার আগে।

পরবর্তী ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সম্ভাবনা ভারতীয় বংশোদ্ভূত ঋষি সুনাকের, জেনে নিন তাঁর সম্বন্ধে বিস্তারিত

অতিমারির সময় বারবার নিয়ম ভেঙে পার্টির আয়োজন করার অভিযোগ উঠেছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের বিরুদ্ধে। এর জেরে সমর্থন হারাচ্ছেন তিনি। তাঁর নিজের কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যদের একাংশও তাঁকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে নারাজ।

এমন সময় পরবর্তী ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বারবার যার নাম উঠে আসছে, তিনি হলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ঋষি সুনাক। ৪১ বছর বয়সী ঋষি কনজারভেটিভ পার্টির চ্যান্সেলর।

জানা গিয়েছে, ঋষির মা একজন ফার্মাসিস্ট এবং বাবা চিকিৎসক। ঋষি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা করেছেন। এরপর ইনফোসিসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা নারায়ণ মূর্তির কন্যা অক্ষতা মূর্তিকে বিয়ে করেন ঋষি। তাদের দুই কন্যা রয়েছে, কৃষ্ণা ও অনুষ্কাকে নিয়ে।

২০১৫ সালে ইয়র্কশায়ারের রিচমন্ডের আইনসভার সদস্য হিসেবে প্রথম ব্রিটেন পার্লামেন্টে প্রবেশ করেন ঋষি। সেই সময় ব্রেক্সিট-এর সমর্থনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন তিনি। এর জেরেই তিনি দ্রুত সকলের নজর কাড়েন ঋষি। এমনকি এও জানা যায় যে জনসনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করার পিছনেও তাঁর ভূমিকা ছিল।

ব্রেক্সিট নিয়ে গণভোটের সময় ঋষি বলেন, “ব্রিটেনের শক্তিশালী ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে আমাদের উদ্যোগ এবং উদ্ভাবনকে সমর্থন করা উচিত”।

নিজে ১০ হাজারন কোটি টাকার আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ সংস্থার সহ-প্রতিষ্ঠাতা ঋষি। রাজনীতিতে আসার আগে নানান ছোটো ব্যবসায় বিনিয়োগও করে দক্ষতা অর্জন করেছেন তিনি। ২০২০ সালে ব্রিটেনের অর্থমন্ত্রী নিযুক্ত হন ঋষি। এরপরই খবরে উঠে আসেন তিনি।

২০২০ সালে তাঁকে প্রশ্ন করা হয় যে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীর হওয়ার উচ্চাকাঙ্ক্ষা রয়েছে কী না তাঁর! উত্তরে ঋষি বলেন, “অবশ্যই না। একজন প্রধানমন্ত্রীকে কী মোকাবিলা করতে হয় তা আমি দেখেছি। আমার পক্ষে প্রধানমন্ত্রী হওয়া যথেষ্ট কঠিন কাজ”। তবে সবকিছু যদি ঠিকঠাক থাকে, তাহলে ব্রিটেনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁকেই দেখা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

You might also like
Comments
Loading...