সব খবর সবার আগে।

অদ্ভুত! ক্রিসমাসের সাজসজ্জার আলো দেখতে অবিকল পুরুষাঙ্গের মতো, হইচই সারা শহর জুড়ে

পরের মাসেই ক্রিসমাস। এই নিয়ে মেতে উঠেছে বিভিন্ন দেশগুলি। কিন্তু এই করোনা আবহে উৎসবের আনন্দের কিছুটা ভাঁটা পড়লেও আখেরে আনন্দ করতে কে না চায়? করোনাকে সঙ্গে নিয়েই তাই দেশে দেশে শুরু হয়েছে ক্রিসমাসের প্রস্তুতি। অন্যান্য বছরের মতো অতোটা জাঁক না হলেও আয়োজনে কিন্তু কমতি রাখছে না কোনও দেশই।

কিন্তু এবার এই ক্রিসমাসের সাজসজ্জা নিয়েই উঠল বিতর্ক। এক অদ্ভুত আলোকসজ্জায় সেজে উঠেছে বেলজিয়ামের ওয়েস্ট ফ্ল্যান্ডার্স প্রদেশের ওডেনবার্গ শহর। জানা গিয়েছে, ক্রিসমাস উপলক্ষে শহর সাজাতে যে ধরণের আলো ব্যবহার করা হয়েছে তা নাকি দেখতে অনেকটা পুরুষাঙ্গের মতো। এই নিয়ে শহর জুড়ে হইহই রইরই কাণ্ড। অনেকেই অভিযোগ জানিয়েছেন এই আলোকসজ্জার বিরুদ্ধে। এই নিয়ে ঘোর বিতর্কে পড়েছেন শহরের মেয়র অ্যান্থনি ডুমারে। এই গাফিলতির জন্য তিনি ক্ষমাও চেয়েছেন।

শহরকে সুন্দর করে সাজিয়ে তুলতে মোমবাতির মতো দেখতে হলুদ আলো ও তার উপর নীল আলো যোগ করে আলোর স্তম্ভ তৈরি করার কথা ছিল। কিন্তু আলোক স্তম্ভগুলি তৈরির পরই সারা শহর জুড়ে তৈরি হয় বিতর্ক। শহরবাসীরা অভিযোগ করেন আলোর স্তম্ভগুলি দেখতে অনেকটা পুরুষাঙ্গের মতো।

এই বিতর্কের মুখে পড়ে ক্ষমা চান মেয়র অ্যান্থনি ডুমারে। কিন্তু তিনি এও জানান যে এই আলোকসজ্জা সরিয়ে নেওয়া হবে না। তিনি বলেন, “আমরা কখনই চাইনি যে ক্রিসমাসের আলোকসজ্জা দেখে লোকের পুরুষাঙ্গের কথা মনে পড়ুক।‌ দিনের বেলাতে দেখে আমি প্রথমে বুঝতে পারিনি। পরে রাতে আলো জ্বলা অবস্থায় দেখার পরে আমার কাছে এই ব্যাপারটা পরিষ্কার হয়। এটা আমাদের টেকনিক্যাল দল ডিজাইন করেছে। কিনতে গেলে অনেক বেশি খরচ হয়ে যেত। অবশ্যই এরকম আকৃতির ক্রিসমাসের আলো তৈরি হোক আমরা কখনই চাইনি। তবে এই আলোকসজ্জাকে সরিয়ে ফেলারও কোনও কারণ আমি দেখছি না। আমি চাই লোকমুখে এটি নিয়ে আলোচনা হোক”।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...