আন্তর্জাতিক

‘রাশিয়া দ্রুতই যুদ্ধ শেষ করতে চায়, কখনওই যুদ্ধ চায়নি রাশিয়া’, বিবৃতি দিয়ে জানাল মস্কো

দু’সপ্তাহের বেশি হয়ে গেল শুরু হয়েছে ইউক্রেন ও রাশিয়ার যুদ্ধ। একাধিক বৈঠকের পরও কোনও সমাধান সূত্র মেলেনি এই নিয়ে। এই যুদ্ধ দীর্ঘদিন চলতে পারে, এমন আশঙ্কা ক্রমেই দৃঢ় হচ্ছে। এমন আবহে এবার রাশিয়া জানাল যে তারা যুদ্ধ সমাপ্ত করতে চায়। সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, রাশিয়ার বিদেশমন্ত্রী সার্গেই ল্যাভরভ একথাই জানিয়েছেন।

রাশিয়ার সরকারি সংবাদ সংস্থা TASS-এর তথ্য অনুযায়ী, ল্যাভরভ এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন, “মস্কো কখনওই যুদ্ধ চায়নি। এবং এই সংঘর্ষ শেষ করতেও উন্মুখ হয়ে রয়েছে”। যদিও রাশিয়া এই বিবৃতি জারি করা সত্ত্বেও যুদ্ধ আদৌ এখনই থামবে কী না, তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ প্রকাশ করেছে ওয়াকিবহাল মহল।

গত ২৪শে ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের নির্দেশ দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এরপরই ইউক্রেনে রুশ সেনা প্রবেশ করে ও শুরু হয় ভয়ঙ্কর যুদ্ধ। প্রথমে মনে করা হয়েছিল যে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে সহজেই কবজা বসাতে পারবে রুশ বাহিনী। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পাল্টা মার দিয়েছে ইউক্রেনীয় সেনারাও। কিয়েভ দখল করতে পারে নি রুশ বাহিনী এখনও। এই লড়াইয়ে হাতে অস্ত্র তুলে নিয়েছেন ইউক্রেনের সাধারণ নাগরিকরাও।

অভিযোগ ওঠে যে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে ‘ভ্যাকিউম বম্ব’ ব্যবহার করেছে রাশিয়া। এর আগে আমেরিকা অভিযোগ করেছিল যে ইউক্রেনে একটি ভ্যাকিউম বম্ব ব্যবহার করেছে রুশ সেনা। সেকথা কার্যত স্বীকার করে নেওয়া হয় রাশিয়ার তরফে।

কী এই ভ্যাকুয়াম বম্ব? কেনই বা এতটা ভয়ঙ্কর সেই অস্ত্র?

সমর বিশেষজ্ঞদের মতে, ভ্যাকিউম বম্ব আসলে একটি থারমোবেরিক বোমা। এই বোমা আশপাশের বাতাস থেকে সমস্ত অক্সিজেন শুষে নেয়। এরপরই প্রচণ্ড বিস্ফোরণ ঘটে। বিরাট অগ্নিগোলক তৈরি হয়। বিস্ফোরণে প্রচণ্ড উত্তাপের সঙ্গে সঙ্গে তৈরি হয় ভয়ংকর শক ওয়েভ। এর গতি এতটাই তীব্র যে বাড়িঘর থেকে মানুষ, সমস্ত কিছু মুহূর্তের মধ্যে খণ্ডবিখণ্ড হয়ে যায়।

বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে, এই বোমার আঘাতে এত বেশি পরিমাণ উত্তাপ ও শক ওয়েভ তৈরি হয় যে মুহূর্তে একটি মানুষ বাষ্পে পরিণত হয়। এই ভয়ঙ্কর বোমাই যে রাশিয়া ইউক্রেনে ব্যবহার করেছে, তা তারা স্বীকার করে নিয়েছে।

Related Articles

Back to top button