আন্তর্জাতিক

স্কুল খোলার পরই দেওয়া হবে উপহার, পঞ্চম শ্রেনি থেকেই পড়ুয়ারা পাবে ‘কন্ডোম’!

আগামী মাস থেকে চালু হবে স্কুল। আর স্কুল খোলামাত্রই পঞ্চম শ্রেণী থেকেই পড়ুয়াদের উপহার হিসেবে দেওয়া হবে কন্ডোম। এমনই নতুন নীতি চালু হয়েছে আমেরিকার শিকাগোর স্কুলে। এই নিয়ে তুঙ্গে উথেভছে বিতর্ক।

শিকাগো সান টাইমসের প্রতিবেদন বলছে, গত বছরের ডিসেম্বর মাসে সিপিএস বোর্ড অফ এডুকেশন নতুন নীতি পাশ করেছে। আর এই নীতি অনুযায়ী, যে সমস্ত স্কুলগুলিতে পঞ্চম শ্রেনি রয়েছে, সেই স্কুলে কন্ডোম রাখতে হবে। এটি শিক্ষার অংশ হিসেবে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

এর অর্থ হল, ১০ বছরের পড়ুয়ারা পাবে কন্ডোম। সব মিলিয়ে শিকাগোতে ৬০০ টি স্কুল রয়েছে। প্রাথমিক স্কুলে প্রতি মাসে ২৫০ টি ও হাইস্কুলে প্রতিমাসে ১০০০ টি কন্ডোম দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। এই কন্ডোম দেওয়া হবে বিনামূল্যেই। কন্ডোম শেষ হয়ে গেলে সংশ্লিষ্ট স্কুল এই বিষয়টি প্রশাসনকে জানাবে। এরপর ফের দেওয়া হবে কন্ডোম।

আরও পড়ুন- ভুল করে ভুল স্বীকার করা সিপিএমের পুরনো স্বভাব, তবুও দিনের শেষে ভাগ্যে লেখা ‘বিধানসভা বামশূন্য’!

এই সিদ্ধান্তকে অনেকেই মেনে নিয়েছেন। একাংশের মতে, পড়ুয়াদের স্বাস্থ্য সবথেকে আগে। সেই চিন্তা করেই এমন একটি নয়া নীতি চালু করেছে সিপিএস বোর্ড অফ এডুকেশন। এক বিশেষজ্ঞ জানাচ্ছেন, সুস্বাস্থ্যের জন্য পড়ুয়াদের সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া খুব প্রয়োজন। এই শিক্ষার ফলে পড়ুয়ারা নিজেদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে আরও সচেতন হবে আর অন্যদেরও সচেতন করবে। এতে লাভ হবে পড়ুয়াদেরই।

কন্ডোম বা এর মতো জিনিস সম্পর্কে সঠিক তথ্য যদি পড়ুয়াদের না জানানো হয়, তাহলে খারাপ জিনিস হতে পারে। হতে পারে। কেউ অন্ত্বঃসত্ত্বা হয়ে পড়তে পারে। এই কারণে পড়ুয়াদের যখন প্রয়োজন হবে, তখন অবশ্যই এই বিষয়ে জানানো উচিত। আবার অপর এক বিশেষজ্ঞের বক্তব্য, কন্ডোম দেওয়া হচ্ছে মানেই এমন নয় যে তাঁদের যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হতে বলা হচ্ছে বা উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে এই বিষয়ে।

আবার উল্টো মতও পোষণ করেছেন অনেকেই। তাদের কথায়, পড়ুয়াদের বয়স আরও কিছুটা বেশি হলে কন্ডোম দেওয়ার ক্ষেত্রে যুক্তি ছিল। কিন্তু পঞ্চম শ্রেণীর পড়ুয়াদের জন্য কন্ডোম কেন, এই প্রশ্নও তুলেছে অনেকেই।

Related Articles

Back to top button