আন্তর্জাতিক

শিল্পীর পর এবার যৌনকর্মীদের খুন করবে তালিবান, পর্ণসাইট দেখে তালিকাভুক্ত করা হচ্ছে যৌন পেশার সঙ্গে যুক্ত মহিলাদের

তালিবান দখলে থাকা আফগানিস্তানে এবার চরম বিপদের মুখে পড়তে চলেছে যৌনকর্মীরা। সূত্রের খবর অনুযায়ী, সেদেশের যৌন পেশার সঙ্গে যুক্ত মহিলাদের চিহ্নিত করতে একটি তালিকা তৈরি করছে তালিবান। যৌনকর্মী হিসেবে চিহ্নিত হলে তাঁকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে বা যৌনদাসী করে রাখবে তালিবান।

খবর সূত্রে জানা গিয়েছে, আফগানিস্তানের কোন কোন জায়গায় যৌনকর্মীরা লুকিয়ে থাকতে পারেন, এসবের খোঁজ চলছে। এর পাশাপাশি নানান পর্ণ সাইটগুলিতেও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সেখানে কোনও আফগান মহিলার ভিডিও থাকলে তাঁর নাম তালিকাভুক্ত করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

এও খবর মিলেছে, যে সব যৌনকর্মীরা বিদেশিদের সঙ্গে যৌনক্রিয়ায় লিপ্ত হন, তাদের মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিত। অন্যান্য যৌনকর্মীদের পরিস্থিতির বিচারে শাস্তি দেওয়া হবে। কাউকে কাউকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে তো আবার কাউকে যৌনদাসী করে রাখা হবে বলেই জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন- বোরখা পরতেও রাজী কিন্তু চাকরি করতে দিতে হবে, তালিবানি চোখ রাঙানিকে জবাব আফগান মহিলাদের

তালিবান আফগানিস্তানে দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই সেদেশের মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে নানান মহলে। কট্টরপন্থী এই সংগঠন মুখে যতই নারী সুরক্ষা ও সম্মানের কথা বলুক না কেন, সেই দুই দশক আগেকাত্র অন্ধকার জীবন যে ফের আফগানভূমে নেমে আসতে চলেছে, তা নিশ্চিত। নারীরা যে তালিবানদের কাছে ভোগ্য বস্তু ও সন্তান উৎপাদনের মাধ্যমে মাত্র, তা তারা বারবার প্রমাণ করেছে।

গতবারও যখন তালিবান ক্ষমতায় এসেছিল, তখনও যৌন পেশার সঙ্গে যুক্ত মহিলাদের প্রকাশ্যে খুন করা হয়েছিল। এবারও তেমনটাই হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আফগানিস্তান তালিবান দখল করার পর থেকেই সেদেশে নারী নির্যাতনের ঘটনা বেড়েছে। শরিয়ত আইনের নামে রীতিমতো পীড়ন চালাচ্ছে তালিবান। কিছুদিন আগেই শুধুমাত্র আঁটসাঁট পোশাক পরার দায়ে এক মহিলাকে গুলি করে খুন করে তালিবান। বোরখা পরতে বাধ্য করা হচ্ছে। তালিবানের এই তাণ্ডবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তুলেছেন আফগান মহিলারা। তারা স্পষ্ট জানিয়েছেন যে শরিয়ত রীতিনীতি মেনে তারা বোরখা পরতে রাজী কিন্তু তাদের চাকরি করতে দিতে হবে ও মেয়েদের স্কুলে যেতে দিতে হবে।

Related Articles

Back to top button