সব খবর সবার আগে।

বাজারে এল বিশ্বের প্রথম ম্যালেরিয়ার টিকা, অনুমোদন দিল হু

বাজারে এল বিশ্বের প্রথম ম্যালেরিয়ার টিকা যা মশাবাহিত সংক্রামক রোগ থেকে মানুষকে বাঁচাবে। এই টিকা তৈরি করেছেন ব্রিটিশ ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইন’। গতকাল, বুধবার বিশ্বের প্রথম ম্যালেরিয়ার টিকার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে হু-এর তরফে। প্রাথমিকভাবে এই টিকা দেওয়া হবে আফ্রিকা মহাদেশের শিশুদের।

হু-র দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গোটা বিশ্বে প্রত্যেক বছর ম্যালেরিয়ায় গড়ে ১০ থেকে ৩০ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে সাহারা মরুভূমি সংলগ্ন আফ্রিকার দেশগুলির গ্রামাঞ্চলে ৮০ থেকে ৯০ শতাংশের মৃত্যু হয়। ২০০০ সাল পর্যন্ত ভারতেও হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু হত ম্যালেরিয়ায়। তবে ২০০০ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে ভারতে ম্যালেরিয়ায় মৃত্যু-হার অনেকটাই কমেছে। জানা গিয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলির মধ্যে ভারতেই ম্যালেরিয়ায় মৃত্যুহার কমেছে সবথেকে বেশি।

বিশ্বের প্রথম এই ম্যালেরিয়ার টিকার নাম ‘আরটিএস, এস’ বা ‘মসকিউরিক্স’। ইউরোপিয়ান মেডিসিনস এজেন্সির তরফে জানানো হয়েছে, ব্রিটিশ ওষুধ সংস্থা গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইন-এর তৈরি এই ম্যালেরিয়ার এই টিকা ৬ সপ্তাহ থেকে ১৭ মাসের শিশুদের প্রয়োগ করা যাবে। এর প্রধান লক্ষ্য ম্যালেরিয়ার হাত থেকে সদ্যোজাতদের বাঁচানো। হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসের মাধ্যমে যকৃতের সংক্রমণও রুখতে পারবে এই টিকা, এমনটাও জানা গিয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এই ম্যালেরিয়ার টিকা আজ থেকে প্রায় ৩৪ বছর আগে ১৯৮৭ সালে বানানো হয়েছিল। কিন্তু সেই সময় হু-এর তরফে এই টিকাকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি। কারণে এই টিকা ব্যবহারের ক্ষেত্রে বেশ কিছু জটিলতা ছিল। প্রথমত তো এই টিকা চারটি পর্বে নিতে হয়। আর এই টিকা নেওয়ার কয়েকমাস পর সংক্রমণ রোখার ক্ষেত্রে এই টিকা আর কাজ করত না। তবে পরবর্তীকালে এই টিকা সেসব জটিলতা কাটিয়ে ওঠে। ২০১৯ সালে হু-এর তত্ত্বাবধানে কেনিয়া, ঘানা ও মালাউয়িতে শিশুদের ২৩ লক্ষ টিকা দেওয়া হয় যা বেশ কার্যকর হয়েছিল।

মসকিউরিস্ক টিকা একটি ০.৫ মিলিমিটারের একটি ইঞ্জেকশন। এই টিকা দেওয়া হয় কাঁধ বা উরুর মাংসপেশিতে। পরপর তিনমাসে তিনবার এই টিকা হয় শিশুদের। এরপর তৃতীয় পর্বের টিকা নেওয়া ১৮ মাস পর চতুর্থ পর্বের টিকা দেওয়া হয়। চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়া এই টিকা দেওয়া হবে না বলে জানানো হয়েছে। আপাতত এই টিকার কার্যকারিতা হল ৩০ শতাংশ।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...